Covid-19: টেস্ট বাড়লেও পর্যাপ্ত নয়, রাজ্যে রোজ প্রয়োজন ৪ হাজার টেস্ট, মত চিকিৎসক মহলের

  • গত সাতদিনে রাজ্যে অনেকটা বেড়েছে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা। কিন্তু সেটা পর্যাপ্ত নয় বলে মত চিকিৎসক মহলের। তাঁদের বক্তব্য, দিনে কমপক্ষে ৪,০০০ টেস্ট করতে হবে। কেন তাঁরা এই লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করছেন, তা জেনে নিন -
সাতদিনে রাজ্যে দ্বিগুণ হয়েছে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা। গত ১৭ মার্চ থেকে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যে ৩৩৯ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ পাওয়া গিয়েছিল। পরের সাতদিনে আরও ৩৫৭ জনের শরীরে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এএনআই)
1/8সাতদিনে রাজ্যে দ্বিগুণ হয়েছে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা। গত ১৭ মার্চ থেকে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যে ৩৩৯ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ পাওয়া গিয়েছিল। পরের সাতদিনে আরও ৩৫৭ জনের শরীরে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এএনআই)
কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার সকাল আটটা পর্যন্ত রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬৯৭। তার মধ্যে ৫০০ জনের শরীরে এখনও করোনার অস্তিত্ব রয়েছে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এএনআই)
2/8কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার সকাল আটটা পর্যন্ত রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬৯৭। তার মধ্যে ৫০০ জনের শরীরে এখনও করোনার অস্তিত্ব রয়েছে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এএনআই)
রাজ্য সরকারের দাবি, জাতীয় গড়ের মতোই রাজ্যে আক্রান্ত বেড়েছে। যদিও চিকিৎসকদের মতে, শুরুর দিকে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা ছিল। এখনও পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় আক্রান্তের সংখ্যাও উর্ধ্বমুখী হয়েছে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
3/8রাজ্য সরকারের দাবি, জাতীয় গড়ের মতোই রাজ্যে আক্রান্ত বেড়েছে। যদিও চিকিৎসকদের মতে, শুরুর দিকে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা ছিল। এখনও পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় আক্রান্তের সংখ্যাও উর্ধ্বমুখী হয়েছে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
গত ২০ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যে ৫,৪৬৯ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল। পরের সাতদিনে আরও ৬,৫৭৪ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা বলেন, 'আমার নমুনা পরীক্ষা ক্রমশ বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১,১৫০-এর মতো নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। (নমুনা পরীক্ষার নিরিখে) জাতীয় গড়ের সঙ্গে একই স্তরে রয়েছে।' (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য মিন্ট)
4/8গত ২০ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যে ৫,৪৬৯ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল। পরের সাতদিনে আরও ৬,৫৭৪ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা বলেন, 'আমার নমুনা পরীক্ষা ক্রমশ বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১,১৫০-এর মতো নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। (নমুনা পরীক্ষার নিরিখে) জাতীয় গড়ের সঙ্গে একই স্তরে রয়েছে।' (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য মিন্ট)
যদিও চিকিৎসক কুণাল সরকারের মতে, রাজ্যে এখনও পর্যাপ্ত সংখ্যায় নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে না। তিনি বলেন, 'আমাদের একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে যে অন্য রাজ্যের মতো এখানে এখনও তেমন উপসর্গহীন রোগী পাইনি। নমুনা পরীক্ষার হার এখনও কম। রাজ্যের জনসংখ্যা ও দেশের নমুনা পরীক্ষার গড় অনুযায়ী, রাজ্যে প্রতিদিন ৪,০০০ নমুনা পরীক্ষার প্রয়োজন আছে।' (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
5/8যদিও চিকিৎসক কুণাল সরকারের মতে, রাজ্যে এখনও পর্যাপ্ত সংখ্যায় নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে না। তিনি বলেন, 'আমাদের একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে যে অন্য রাজ্যের মতো এখানে এখনও তেমন উপসর্গহীন রোগী পাইনি। নমুনা পরীক্ষার হার এখনও কম। রাজ্যের জনসংখ্যা ও দেশের নমুনা পরীক্ষার গড় অনুযায়ী, রাজ্যে প্রতিদিন ৪,০০০ নমুনা পরীক্ষার প্রয়োজন আছে।' (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়েরকারী তথা বর্ষীয়ান সিপিআই(এম) নেতা ফুয়াদ হালিম বলেন, 'নমুনা পরীক্ষার হার বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। আমি হাইকোর্টে মামলা দায়েরের পর নমুনা পরীক্ষা বেড়েছে। তবে প্রতি ১০ লাখে জনসংখ্যার নিরিখে এখনও জাতীয় গড়ের তুলনায় চার গুণ কম পরীক্ষা করছে রাজ্য।' (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
6/8রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়েরকারী তথা বর্ষীয়ান সিপিআই(এম) নেতা ফুয়াদ হালিম বলেন, 'নমুনা পরীক্ষার হার বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। আমি হাইকোর্টে মামলা দায়েরের পর নমুনা পরীক্ষা বেড়েছে। তবে প্রতি ১০ লাখে জনসংখ্যার নিরিখে এখনও জাতীয় গড়ের তুলনায় চার গুণ কম পরীক্ষা করছে রাজ্য।' (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
মুখ্যসচিব জানান, রাজ্যের ২৩ টির চারটি জেলা লাল জোনে রয়েছে। আর রাজ্যের মোট করোনা আক্রান্তের ৮০ শতাংশের হদিশ কলকাতা থেকে পাওয়া গিয়েছে। তিনি বলেন, 'পূর্ব মেদিনীপুরের আটটি সংক্রামক এলাকার মধ্যে পাঁচটি, উত্তর ২৪ পরগনায় ৫৭ টির মধ্যে ১৩ টি ও হাওড়ায় ৫৬টির মধ্যে ১৩ টি সংক্রামক এলাকায় গত দু'সপ্তাহে নতুন করে করোনা আক্রান্তের হদিশ পাওয়া যায়নি।' কলকাতার ক্ষেত্রে অবশ্য বিষয়টি অত্যন্ত উদ্বেগের। কারণ মহানগরীর ২২৭ টি সংক্রামক এলাকার মধ্যে মাত্র ১৮ টিতে গত ১৪ দিনে নতুন করে করোনা আক্রান্তের হদিশ পাওয়া যায়নি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
7/8মুখ্যসচিব জানান, রাজ্যের ২৩ টির চারটি জেলা লাল জোনে রয়েছে। আর রাজ্যের মোট করোনা আক্রান্তের ৮০ শতাংশের হদিশ কলকাতা থেকে পাওয়া গিয়েছে। তিনি বলেন, 'পূর্ব মেদিনীপুরের আটটি সংক্রামক এলাকার মধ্যে পাঁচটি, উত্তর ২৪ পরগনায় ৫৭ টির মধ্যে ১৩ টি ও হাওড়ায় ৫৬টির মধ্যে ১৩ টি সংক্রামক এলাকায় গত দু'সপ্তাহে নতুন করে করোনা আক্রান্তের হদিশ পাওয়া যায়নি।' কলকাতার ক্ষেত্রে অবশ্য বিষয়টি অত্যন্ত উদ্বেগের। কারণ মহানগরীর ২২৭ টি সংক্রামক এলাকার মধ্যে মাত্র ১৮ টিতে গত ১৪ দিনে নতুন করে করোনা আক্রান্তের হদিশ পাওয়া যায়নি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
এদিকে আরও কড়া দাওয়াইয়ের পথে হাঁটছে পুলিশ। রাস্তায় মাস্ক না পরে বেরোনোর জন্য রবিবার ১৬৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে কলকাতা পুলিশ। প্রকাশ্যে থুতু ফেলার জন্য ২৬ জনের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে মামলা। পাশাপাশি লকডাউন ভঙ্গের জন্য ৫৫৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। পাশাপাশি লকডাউন পরিস্থিতিতে নজর রাখতে ড্রোন ও বেলুন ক্যামেরাও ব্যবহার করা হচ্ছে। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
8/8এদিকে আরও কড়া দাওয়াইয়ের পথে হাঁটছে পুলিশ। রাস্তায় মাস্ক না পরে বেরোনোর জন্য রবিবার ১৬৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে কলকাতা পুলিশ। প্রকাশ্যে থুতু ফেলার জন্য ২৬ জনের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে মামলা। পাশাপাশি লকডাউন ভঙ্গের জন্য ৫৫৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। পাশাপাশি লকডাউন পরিস্থিতিতে নজর রাখতে ড্রোন ও বেলুন ক্যামেরাও ব্যবহার করা হচ্ছে। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
অন্য গ্যালারিগুলি