বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs SA: বিধ্বংসী ফর্মে থাকা কার্তিককে স্ট্রাইকই দিলেন না হার্দিক, ভাইরাল ভিডিয়ো
দীনেশ কার্তিককে স্ট্রাইক না দেওয়ার জন্য স্বার্থপরের মতো কাজ করলেন হার্দিক।

IND vs SA: বিধ্বংসী ফর্মে থাকা কার্তিককে স্ট্রাইকই দিলেন না হার্দিক, ভাইরাল ভিডিয়ো

  • শেষ ওভারের পঞ্চম বলে রান নেওয়ার সুযোগ থাকলেও কার্তিককে স্ট্রাইক না দেওয়ার জন্য কোনও রানই নেননি হার্দিক। আসলে নিজেই ম্যাচ শেষ করতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে শেষ বলে চার-ছয় হাঁকাতে পারেননি পাণ্ডিয়া। হয় মাত্র ২ রান। 

টিম ইন্ডিয়ার অভিজ্ঞ উইকেটকিপার-ব্যাটার দীনেশ কার্তিক যখন তিন বছর পর মাঠে ফিরলেন, তখন পুরো স্টেডিয়ামে আছড়ে পড়েছিল ডিকে, ডিকে...' প্রতিধ্বনি। দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে কার্তিকের বিধ্বংসী মেজাজের ব্যাটিং দেখার জন্য় উদগ্রীব হয়েছিলেন দর্শকরা। কিন্তু কার্তিককে স্ট্রাইক না দেওয়ার জন্য স্বার্থপরের মতো কাজ করলেন হার্দিক পান্ডিয়া। যাতে চটেছেন ক্রিকেট প্রেমীরা।

ভারতের ইনিংসের ২০তম ওভারের প্রথম বলে অধিনায়ক ঋষভ পন্ত আউট হওয়ার পর ক্রিজে আসেন দীনেশ কার্তিক। ওভারের দ্বিতীয় বলে কার্তিক স্ট্রাইকে ছিলেন। সেই বলে রান নিতে পারেননি ডিকে। তৃতীয় বলে কার্তিক একটি রান নিয়ে হার্দিক পাণ্ডিয়াকে স্ট্রাইক দেন। তবে ঝুঁকি নিয়ে রানটি নেন তিনি। কারণ অল্পের জন্য রান আউট হওয়ার হাত থেকে বাঁচেন কার্তিক। ফিল্ডারের থ্রো যদি স্টাম্পে লেগে যেত, তাহলে ডিকে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যেতেন।

আরও পড়ুন: অল্পের জন্য রান আউট মিস, কপাল জোরে ০ করার লজ্জার হাত থেকে বাঁচলেন পন্ত- ভিডিয়ো

চতুর্থ বলে হার্দিক পাণ্ডিয়া ছক্কা হাঁকান। পরের বলে ডিপ মিডউইকেটের দিকে শট খেলেন তিনি। রান নেওয়ার সুযোগ থাকলেও কার্তিককে স্ট্রাইক না দেওয়ার জন্য ইচ্ছে করে কোনও রানই নেননি হার্দিক। কার্তিক রান নেওয়ার কথা বললেও রাজি হননি তিনি। আসলে নিজেই ম্যাচ শেষ করতে চেয়েছিলেন হার্দিক। তবে শেষ বলে চার-ছয় হাঁকাতে পারেননি পাণ্ডিয়া। হয় মাত্র ২ রান। আর হার্দিকের রান না নেওয়া নিয়ে বেশ বিরক্ত ক্রিকেট প্রেমীরা। অনেকেই তাঁকে স্বার্থপর বলছেন, কারও দাবি আবার, সিনিয়রদের সম্মানই করতে জানেন না ওভারস্মার্ট হার্দিক।

তবে হার্দিক পান্ডিয়া এ দিন ১২ বলে অপরাজিত ৩১ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেছেন। হার্দিকের ইনিংসে ২টি চার ও ৩টি ছক্কা রয়েছে। আর দীনেশ কার্তিক মাত্র ২বল খেলার সুযোগ পেয়েছেন। তাঁর সংগ্রহ অপরাজিত ১ রান।

বৃহস্পতিবার টসে জিতে ফিল্ডিং নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথমে ব্যাট করে ৪ উইকেট হারিয়ে ২১১ রান করেছিল ভারত। ইশান কিষাণ ৪৮ বলে ৭৬ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন। এ ছাড়া পন্তের ২৯, শ্রেয়সের ৩৬ এবং হার্দিকের অপরাজিত ৩১ রান রয়েছে। সকলে মিলেই ভারতকে ২০০ রানের গণ্ডি পার করান। তবে সবচেয়ে বেশি কৃতিত্ব নিঃসন্দেহে ইশানের।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৫ বল বাকি থাকতেই ৩ উইকেটে ২১২ করে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। তারা ৭ উইকেটে ম্যাচটি জিতে যায়। ৩১ বলে ৬৪ রান করে অপরাজিত থাকেন ডেভিড মিলার। ৪৬ বলে ৭৫ রানে অপরাজিত থেকে রাসি ভ্যান ডার ডুসেন। রান তাড়া করতে গিয়ে চতুর্থ উইকেটে ১৩১ রানের দুরন্ত পার্টনারশিপ গড়ে মিলার-ডুসেন জুটি। ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বিপক্ষের সর্বাধিক রানের পার্টনারশিপের নজির এটাই।

বন্ধ করুন