বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > DC vs KXIP: ট্র্যাজিক হিরো মায়াঙ্ক, সুপার ওভারে উত্তেজক জয় দিল্লির
হতাশ মায়াঙ্ক, উচ্ছ্বাস দিল্লির। ছবি- আইপিএল।
হতাশ মায়াঙ্ক, উচ্ছ্বাস দিল্লির। ছবি- আইপিএল।

DC vs KXIP: ট্র্যাজিক হিরো মায়াঙ্ক, সুপার ওভারে উত্তেজক জয় দিল্লির

  • ব্যাটে-বলে অনবদ্য স্টইনিস কিংস ইলেভেনের কাছ থেকে ম্যাচ ছিনিয়ে নেন।

আইপিএল ২০২০-র প্রথম ম্যাচ তবু কিছুটা ফ্যাকাসে মনে হতে পারে। তবে দ্বিতীয় ম্যাচেই বোঝা যায় ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগের মাহাত্ম্য। টান টান উত্তেজক ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটালস সুপার ওভারে পরাজিত করে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবকে।

লোকেশ রাহুলদের বিরুদ্ধে কার্যত হারা ম্যাচে দিল্লি জয় ছিনিয়ে নেয় বলা চলে। কেননা, ম্যাচের ভাগ্য পেন্ডুলামের মতো দুলতে থাকলেও একসময় জয়ের দোরগোড়ায় পৌঁছে গিয়েছিল পঞ্জাব। বলা ভালো যে, মায়াঙ্ক আগরওয়াল একাই দিল্লির হাত থেকে ম্যাচ বার করে নিয়ে যাওয়ার উপক্রম করেছিলেন। তবে ব্যাট হাতে যেমন ম্যাচের রং বদলে দিয়েছিলেন, ঠিক তেমনই বল হাতেও মার্কাস স্টইনিস ম্যাজিক দেখান শেষ ওভারে। শেষ দু'বলে দুটি উইকেট নিয়ে ম্যাচ টাই করেন তিনি।

(আইপিএলের লাইভ আপডেট ও লাইভ স্কোর জানতে ক্লিক করুন এখানে।)

সুপার ওভারে কাগিসো রাবাদা পর পর দু'টি উইকেট নিয়ে দিল্লির জয়ের রাস্তা পরিস্কার করে দেন। শ্রেয়স আইয়ারের সঙ্গে ব্যাট করতে নেমে ঋষভ পন্ত আইপিএলের প্রথম ম্যাচে দলের জয় নিশ্চিত করেন।

প্রথমে ব্যাট করত নেমে দিল্লি একসময় ১৭ ওভারে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ১০০ রান তুলেছিল। সেখান থেকে স্টইনিসের ২১ বলে ৫৩ রানের ঝোড়ো ইনিংসে ভর করে ক্যাপিটালস নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটের বিনিময়ে ১৫৭ রান তোলে। শামি ১৫ রানে ৩ উইকেট নিয়ে নজর কাড়েন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে পঞ্জাব শুরু থেকেই নিয়মিত অন্তরে উইকেট খোয়াতে থাকে। একা মায়াঙ্ক আগরওয়াল ৮৯ রান করে কিংস ইলেভেনকে জয়ের দোরগোড়ায় এনে ফেলেন। জয়ের জন্য শেষ তিন বলে ১ রান দরকার ছিল রোকেশ রাহুলদের। স্টইনিসের একটি বল ডট হয়। পরের দু'টি বলে যথাক্রমে আউট হন মায়াঙ্ক ও জর্ডন।

ম্যাচ টাই হওয়ায় ফলাফল নির্ধারণের জন্য লড়াই গড়ায় সুপার ওভারে। সকলকে অবাক করে পঞ্জাব ব্যাট করতে পাঠায় লোকেশ রাহুল ও নিকোলাস পুরানকে। লোকেশ রাবাদার দ্বিতীয় বলে আউট হলে ক্রিজে আসেন ম্যাক্সওয়েল। অর্থাৎ সেট ব্যাটসম্যান মায়াঙ্ককে সুপার ওভারে ব্যাট করতে পাঠায়নি কিংস ইলেভেন। তৃতীয় বলেই বোল্ড হন পুরান।

সুপার ওভারে জয়ের জন্য ৩ রানের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় দিল্লির সামনে, যা তারা ২টি বলেই তুলে নেয়। সঙ্গত কারণেই ম্যাচের সেরা হয়েছেন স্টইনিস। তবে ট্র্যাজিক হিরো হয়ে থেকে যান মায়াঙ্ক। মহম্মদ শামির দুরন্ত পারফর্ম্যান্সও ব্যর্থ হয় দল যথাযথ মর্যাদা দিতে না পারায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:- দিল্লি: ১৫৭/৮ (২০ ওভার), পঞ্জাব: ১৫৭/৮ (২০ ওভার)।

সুপার ওভারের স্কোর:- পঞ্জাব: ২/২ (০.৩ ওভার), দিল্লি: ৩/০ (০.২ ওভার)।

বন্ধ করুন