বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'না জেনেই কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী', টিকাকরণ ‘জুমলা’ নিয়ে মমতাকে পালটা তোপ দিলীপের
ইকোপার্কে দিলীপ ঘোষ 
ইকোপার্কে দিলীপ ঘোষ 

'না জেনেই কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী', টিকাকরণ ‘জুমলা’ নিয়ে মমতাকে পালটা তোপ দিলীপের

  • রবিবার শিলিগুড়িতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, দেশের মোট জনসংখ্যা ১৩০ কোটি। এখনও পর্যন্ত একটাও টিকা পাননি, এমন অনেকে আছেন। সেই সব মানুষকে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা না করে কৃতিত্বের দাবি করা হচ্ছে।

রবিবার শিলিগুড়িতে গিয়ে ১০০ কোটি টিকাকরণকে 'জুমলা' বলে কটাক্ষ করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এদিন মমতার সেই বক্তব্যের পালটা তোপ দাগলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহসভাপতি দিলীপ ঘোষ। প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দিলীপ ঘোষ এধিন বলেন, 'না জেনেই কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী।'

দিলীপ ঘোষ এদিন বলেন, 'উনি মুখ্যমন্ত্রী। তা হলেও বা কী! তাঁর কাছে কোনও হিসেবই থাকে না। উনি কিছুই জানেন না। যা মুখে আসে তাই বলে দেন। টিকাকরণ নিয়ে উনি কী জানেন? তাছাড়া কত লোক টিকা পেয়েছেন তা তো কেন্দ্রীয় সরকারের ওয়েবসাইটে গেলেও দেখা যাবে। না জেনেই কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী।'

প্রসঙ্গত এর আগে রবিবার শিলিগুড়িতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, 'টিকাকরণ নিয়ে হিসেব নেই। আমার রাজ্যে ৮ কোটি টিকাকরণ হয়েছে। সে হিসেব আমি দেব। যা ইচ্ছে বুঝিয়ে দেয়। দেশের মোট জনসংখ্যা ১৩০ কোটি। এখনও পর্যন্ত দেশের ২৯ কোটি ৫২ লক্ষ মানুষ টিকার দুটো ডোজই পেয়েছেন। একটাও টিকা পাননি, এমন অনেকে আছেন। সেই সব মানুষকে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা না করে কৃতিত্বের দাবি করা হচ্ছে।' টিকা সরবরাহ নিয়েও কেন্দ্রকে তোপ দাগেন মমতা। বলেন, 'আমার রাজ্যের জন্য প্রয়োজন ১৪ কোটি টিকার। কিন্তু আমাকে দেওয়া হয়েছে ৭ কোটি টিকা। আমার থেকে ছোট রাজ্য মহারাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশ। তাদের আমার থেকে বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে।'

মুখ্যমন্ত্রী রবিবার আরও বলেন, 'দেশে ঢেড়া পিটিয়ে দাবি করছে ১০০ কোটি ডোজ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু, ওটা তো দুটো ডোজ মিলে হয়েছে। মিল ঝুলকে জুমলা কর দিয়া। টিকাকরণের বাংলাই প্রথমে। বাংলার চিকিৎসক, নার্স এবং আশাকর্মীরা যেভাবে টিকা দিতে পারেন, তা অন্য কোনও রাজ্য পারে না। যারা ঢাক, তালি, থালি, ঘণ্টা বাজায়, তাদের বলি কাজ করে ঘণ্টা বাজান।'

বন্ধ করুন