বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কচুরি দেওয়ায় দেরি নিয়ে বচসা, হুগলি ঘাটে দোকান ভাঙচুরের অভিযোগ ক্রেতার বিরুদ্ধে
হুগলি ঘাটের এই দোকানেই চলে ভাঙচুর। 

কচুরি দেওয়ায় দেরি নিয়ে বচসা, হুগলি ঘাটে দোকান ভাঙচুরের অভিযোগ ক্রেতার বিরুদ্ধে

  • ঘটনার কথা জানিয়ে চুঁচুড়া থানায় ফোন করেন তপনবাবু। পুলিশ পৌঁছলে দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ দেখান। এর পর থানায় গিয়ে শেখ জাফরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

মিষ্টির দোকানে কচুরি পেয়ে পেতে দেরি হওয়ায় ভাঙচুরের অভিযোগ উঠল এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। হুগলি ঘাটের শতাব্দীপ্রাচীন মিষ্টির দোকান ‘সুরুচি’-তে ভাঙচুরের অভিযোগ শেখ জাফরের বিরুদ্ধে। সিসিটিভি ফুটেজ জমা দিয়ে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছেন দোকান মালিক।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সোমবার সকালে স্থানীয় বারোদুয়ারি পুজোকমিটির পক্ষ থেকে ওই মিষ্টির দোকানে প্রচুর কচুরির অর্ডার দেওয়া হয়েছিল। সেই কচুরি বানাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন দোকানের কর্মীরা। ওদিকে রোজ যারা ওই দোকান থেকে কচুরি খান তাঁরা অপেক্ষা করতে থাকে। পুজো কমিটির কচুরি ভাজা শেষ হলে দোকানের কর্মীরা জানান, ডাল শেষ হয়ে গেছে।

ভিড়ের মধ্যে অপেক্ষা করছিলেন স্থানীয় মাংস বিক্রেতা শেখ জাফরের দাদা। শেখ জাফরের জন্য কচুরি কিনতে এসেছিলেন তিনি। কিন্তু অনেকক্ষণ পরেও দাদা কচুরি নিয়ে না ফেরায় মিষ্টির দোকানে হাজির হন শেষ জাফর নিজে। এর পর দোকানের মালিক তপন দাসের সঙ্গে তাঁর হাতাহাতি শুরু হয়ে যায়। তখনই দোকানের কাচের শো কেস ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে শেখ জাফরের বিরুদ্ধে। শো কেসের ভাঙা কাচে হাত কেটে যায় শেখ জাফরেরও। তাঁর হাতে ১৩টা সেলাই দিতে হয়েছে।

বাবার বকুনি খেয়ে বাড়ি থেকে পালিয়েছিল কিশোরী youtuber, কোথায় খোঁজ মিলল তার?

ঘটনার কথা জানিয়ে চুঁচুড়া থানায় ফোন করেন তপনবাবু। পুলিশ পৌঁছলে দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ দেখান। এর পর থানায় গিয়ে শেখ জাফরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

পালটা অভিযুক্তের দাবি, দোকানের কর্মচারীরাই তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন। ধস্তাধস্তিতে পড়ে গিয়ে শো কেসের কাচ ভেঙেছে। হাত কেটেছে তার।

তাপসবাবুর দাবি, তাঁর দোকানের পসারে ঈর্শ্বায় এই কাজ করেছে এলাকারই ব্যবসায়ী শেখ জাফর। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে চুঁচুড়া থানার পুলিশ।

 

বন্ধ করুন