বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > East Burdwan: উচ্চ মাধ্যমিকে পাশ করতে পারেনি, অবসাদে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী ছাত্রী
পূর্ব বর্ধমানে আত্মঘাতী উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। প্রতীকী ছবি।

East Burdwan: উচ্চ মাধ্যমিকে পাশ করতে পারেনি, অবসাদে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী ছাত্রী

  • এ বছর উচ্চ মাধ্যমিকে ফল প্রকাশ হওয়ার পরেই পাশ করানোর দাবিতে রাজ্য জুড়ে আন্দোলন চালাচ্ছে উচ্চমাধ্যমিকে অকৃতকার্য পড়ুয়ারা। পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজেয়া সেই আন্দোলনে যোগ দিয়েছিল। তার বাড়িতে রয়েছেন বাবা মুজিবুর শেখ মা রাজিমা শেখ এবং দুই ভাই।

বর্ধমান কলেজে ভর্তি হওয়ার স্বপ্ন ছিল তরুণীর। কিন্তু, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়া সেই স্বপ্ন ভেঙে যায়। সে অবসাদে সেই আত্মঘাতী হল এক উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। গতকাল ঘর থেকে তার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। মৃতের নাম রাজেয়া খাতুন। ঘটনাটি পূর্ব বর্ধমানের গুসকরা কলেজ মোড় এলাকার। এই ঘটনায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে পুলিশ। তার মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

এ বছর উচ্চ মাধ্যমিকে ফল প্রকাশ হওয়ার পরেই পাশ করানোর দাবিতে রাজ্য জুড়ে আন্দোলন চালাচ্ছে উচ্চমাধ্যমিকে অকৃতকার্য পড়ুয়ারা। পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজেয়া সেই আন্দোলনে যোগ দিয়েছিল। তার বাড়িতে রয়েছেন বাবা মুজিবুর শেখ মা রাজিমা শেখ এবং দুই ভাই। বাড়ির একমাত্র মেয়ে রাজেয়া গুসকরা বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী। সেখানেই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিল। ফল ঘোষণার পর জানা যায় ইংরেজি-সহ দু'টি বিষয় পাশ করতে পারেনি সে।

পরিবারের দাবি, রাজেয়া ভালো পরীক্ষা দিয়েছিল। তাই তার আশা ছিল সে পাশ করবে। স্বপ্ন ছিল পাশ করার পর বর্ধমান কলেজে ভর্তি হওয়ার। কিন্তু, পরীক্ষায় ফল প্রকাশ হওয়ার পরেই প্রচণ্ড ভেঙে পড়ে রাজেয়া। তার বাবা মজিবুরের কথায়, ‘সকালে যখন কাজে বেরিয়েছিলাম তখন দেখি মেয়ে পড়াশোনা করছিল। পরে শুনি সেই এই কাজ করেছে। উচ্চমাধ্যমিকে পাশ করতে না পারায় প্রচণ্ড ভেঙে পড়েছিল মেয়ে। সে অবসাদে ভুগছিল। তবে এরকম কাণ্ড ঘটিয়ে বসবে তা ভাবতেও পারিনি।’ এদিন সকালে মেয়ের ঝুলন্ত দেহ দেখতে হবে তড়িঘড়ি পরিবারের লোকেরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। বাড়ির একমাত্র মেয়ের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমেছে পরিবারে।

বন্ধ করুন