বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাসী বাবুল, ‘শত্রুঘ্ন সিনহা জেতার পর আমরা হইহই করব’
গণনা কেন্দ্রের বাইরে বাউল সুপ্রিয়। নিজস্ব ছবি।

জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাসী বাবুল, ‘শত্রুঘ্ন সিনহা জেতার পর আমরা হইহই করব’

তিনি বলেন, ‘বালিগঞ্জের মতো জায়গায় সুব্রতদা'র মতো ব্যক্তির আসনে আমাকে প্রার্থী করেছিল দল। তাতে আমি খুব খুশি।’

আজ সকাল থেকে চলছে দুই কেন্দ্রের ভোট গণনা। তাতে দেখা যাচ্ছে আসানসোল এবং বালিগঞ্জ দুটি কেন্দ্রেই এগিয়ে রয়েছেন তৃণমূল প্রার্থীরা। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখনও অবধি ১৬ রাউন্ড গণনা হয়েছে। দুটি কেন্দ্রেই তৃণমূল প্রার্থীরা যেভাবে বিপুল ভোটে এগিয়ে রয়েছেন তাতে জয়ের বিষয়ে নিশ্চিত তৃণমূলের প্রার্থীরা। জয়ের আগেই চওড়া হাসি দেখা গিয়েছে বালিগঞ্জের তৃণমূল প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়র মুখে। এই কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক ছিলেন প্রয়াত তৃণমূল নেতা সুব্রত মুখার্জি। এদিন ভোট গণনা চলাকালীন তাঁকে স্মরণ করেন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন, ‘বালিগঞ্জের মতো জায়গায় সুব্রতদা'র মতো ব্যক্তির আসনে আমাকে প্রার্থী করেছিল দল। তাতে আমি খুব খুশি।’

আসানসোলের তৃণমূল প্রার্থী শত্রুঘ্ন সিনহা লক্ষাধিকেরও বেশি ভোটে এগিয়ে রয়েছেন। আসানসোল নিয়েও খুশি বাবুল সুপ্রিয়। উল্লেখ্য, বিজেপিতে থাকার সময় আসানসোল থেকে জয়ী হয়ে সাংসদ হয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। ফলে আসানসোলের প্রতি যে তাঁর আলাদা আবেগ রয়েছে তা এদিন নিজের বক্তব্যের মাধ্যমে স্পষ্ট করেন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন, ‘আসানসোল নিয়ে আমি খুবই খুশি। আমি জানতাম শত্রুঘ্ন সিনহা জিতবে। শুধু ভোটের আগে একটি ধারণা তৈরি করা হয়েছিল। আসানসোলের মানুষের অভিমান রয়েছে যে আমি ওদেরকে কেন ছাড়লাম। আসানসোল আমার কাছে খুবই স্পেশাল। শত্রুঘ্ন জেতার পর আমরা হইহই করব। একসঙ্গে আসানসোলে কাজ করব।’

উল্লেখ্য, ১৬ রাউন্ড গণনা শেষে বালিগঞ্জ কেন্দ্রে প্রথম স্থানে রয়েছেন বাউল সুপ্রিয়। এখনও পর্যন্ত তিনি ৪৩২২০ টি ভোট পেয়েছেন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন সিপিএম প্রার্থী সায়রা শাহ হালিম। তিনি ২৯১৩৬ টি ভোট পেয়েছেন। বিজেপি প্রার্থী কেয়া ঘোষ ৯৩৭১ টি ভোট পেয়ে তৃতীয় এবং কংগ্রেস প্রার্থী কামরুজ্জামান ৪৯৬৪ টি ভোট পেয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছেন।

বন্ধ করুন