বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণে বঞ্চনার অভিযোগ রাজ্য BJP-র পুরনো নেতাদের
কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রাজ্যের ৪ প্রতিমন্ত্রী।
কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রাজ্যের ৪ প্রতিমন্ত্রী।

মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণে বঞ্চনার অভিযোগ রাজ্য BJP-র পুরনো নেতাদের

  • মন্ত্রী নির্বাচন নিয়েও ক্ষোভ রয়েছে দলের পুরনো নেতৃত্বের একাংশের মধ্যে। নতুন চার মন্ত্রীর মধ্যে ৩ জনই তৃণমূল থেকে আসা। দলের সঙ্গে বেশিদিন যোগাযোগ নয় তাঁদের। শুধুমাত্র সুভাষ সরকার দলের পুরনো কর্মী।

বুধবার বিকেলে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার রদবদলে পশ্চিমবঙ্গ পেয়েছে ৪ জন প্রতিমন্ত্রী। ২ থেকে বেড়ে রাজ্যের কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর সংখ্যা হয়েছে ৪। কিন্তু তাতে খুশি নয় রাজ্য বিজেপির একাংশ। তাদের দাবি, ১৮ জন সাংসদ দিয়ে ৪ জন প্রতিমন্ত্রী আসলে নাকের বদল নরুণ প্রাপ্তি। কিন্তু প্রকাশ্যে এব্যাপারে মুখ খুলতে নারাজ তাঁরা।

বুধবারের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার রদবদলে প্রতিমন্ত্রীর পদ পেয়েছেন বাঁকুড়ার সাংসদ চিকিৎসক সুভাষ সরকার, আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বারলা, কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক, বনগাঁর সাংসদ শান্তনু ঠাকুর। রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের মতে আরও কিছু মন্ত্রিত্ব আশা করেছিলেন তাঁরা।

সঙ্গে মন্ত্রী নির্বাচন নিয়েও ক্ষোভ রয়েছে দলের পুরনো নেতৃত্বের একাংশের মধ্যে। নতুন চার মন্ত্রীর মধ্যে ৩ জনই তৃণমূল থেকে আসা। দলের সঙ্গে বেশিদিন যোগাযোগ নয় তাঁদের। শুধুমাত্র সুভাষ সরকার দলের পুরনো কর্মী। এমনকী বাকি ৩ জনের অনেককে দলের কর্মসূচিতেও সব সময় দেখা যায় না বলে অভিযোগ তাঁদের। এই নেতাদের মন্ত্রী করায় ক্ষুব্ধ বিজেপির পুরনো নেতৃত্ব। বিষয়টি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কানে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

সঙ্গে বাবুল সুপ্রিয় ও দেবশ্রী চৌধুরী পদ হারানোয় ক্ষোভ রয়েছে অনেকের। রাজ্য নেতৃত্বের একাংশের মতে সংগঠনে পদ পেতে চলেছেন তাঁরা।

এই নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘সরকারে তো বদল চলতেই থাকে। মন্ত্রী বাছাই প্রধানমন্ত্রীর এক্তিয়ার। যাঁদের দল বা সরকারে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে এমন লোকেদেরই মন্ত্রিত্ব দিয়েছেন তিনি।’

বন্ধ করুন