বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ভুয়ো মামলা সাজিয়ে আদালতে চরম ভর্ৎসনার মুখে পড়ল বারাসত পুলিশ
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

ভুয়ো মামলা সাজিয়ে আদালতে চরম ভর্ৎসনার মুখে পড়ল বারাসত পুলিশ

  • অভিযোগের তদন্তে নেমে পুলিশ রুদ্রপ্রসাদ চক্রবর্তী, বৈশাখি চক্রবর্তী ও জিষ্ণু বিশ্বাসের বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করে পুলিশ। তাতে দেখা যায় যে নম্বরের অ্যাম্বাসাডর গাড়িতে করে অভিযুক্তরা এসেছিল বলে দাবি করা হয়েছে সেটি আসলে একটি অটো রিকশর নম্বর।

ভুল তথ্য দিয়ে মিথ্যা মামলা সাজিতে চার্জশিট পেশ করায় আদালতের ভর্ৎসনার মুখে পড়ল বারাসত জেলা পুলিশ। অভিযোগ, তিন চাকার অটোকে অ্যাম্বাসাডর গাড়ি বলে উল্লেখ করে ৩ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দিয়েছিল পুলিশ। সেই চার্জশিট বাতিল করেছেন বিচারপতি তীর্থঙ্কর ঘোষ।

অভিযোগকারীর আইনজীবী জানিয়েছেন চৈতালি আচার্য নামে এক মহিলার বিরুদ্ধে রুদ্রপ্রসাদ চক্রবর্তী নামে এক ব্যক্তি বধূনির্যাতনের অভিযোগ করেছেন। মেয়েকে শ্বশুরবাড়িতে নির্যাতন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছিলেন তিনি। পালটা রুদ্রপ্রসাদবাবুদের বিরুদ্ধে অ্যাম্বাসাডর গাড়ি করে বাড়িতে এসে মারধরের অভিযোগ করেন চৈতালি আচার্য। দ্বিতীয় অভিযোগের তদন্তে নেমে পুলিশ রুদ্রপ্রসাদ চক্রবর্তী, বৈশাখি চক্রবর্তী ও জিষ্ণু বিশ্বাসের বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করে পুলিশ। তাতে দেখা যায় যে নম্বরের অ্যাম্বাসাডর গাড়িতে করে অভিযুক্তরা এসেছিল বলে দাবি করা হয়েছে সেটি আসলে একটি অটো রিকশর নম্বর। সেই অটো রিকশটি ২০১০ সালে বাতিল হয়ে গিয়েছে।

এর পরই বারাসত জেলা পুলিশকে চরম ভর্ৎসনা করেন বিচারপতি ঘোষ। তিনি বলেন, চার্জশিট দেখে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে কোনও কারণে অভিযোগকারীর হয়ে মামলা সাজাতে ব্যস্ত ছিল। ফলে কোন গাড়ির নম্বর তারা চার্জশিটে লিখেছে তাও খেয়াল ছিল না তাদের। অবিলম্বে এই চার্জশিট বাতিলের নির্দেশ দেন বিচারপতি।

 

বন্ধ করুন