বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > KMC: বিদ্যুৎ চুরি ও হুকিং রুখতে কড়া পুরসভা, কাউন্সিলরদের জায়গা চিহ্নিত করার নির্দেশ

KMC: বিদ্যুৎ চুরি ও হুকিং রুখতে কড়া পুরসভা, কাউন্সিলরদের জায়গা চিহ্নিত করার নির্দেশ

বিদ্যুৎ চুরি রুকতে পদক্ষেপ করবে কলকাতা পুরসভা। প্রতীকী ছবি

ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, ‘এই সমস্ত জায়গাগুলি চিহ্নিত করার পর আমরা সিইএসসি এবং পুলিশের সহযোগিতায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করব।’ এর পাশাপাশি হুকিং এবং বিদ্যুৎ চুরি নিয়ে সচেতনতামূলক প্রচার চালাবে কলকাতা পুরসভা।

একবালপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুজনের মৃত্যুর ঘটনার পরেই হুকিং রুখতে কড়া নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপরেই বিদ্যুৎ চুরি এবং হুকিং রুখতে তৎপর হয়েছে প্রশাসন। এবার শহরে হুকিং এবং বিদ্যুৎ চুরি আটকাতে বিশেষ অভিযান চালাবে কলকাতা পুরসভা। মেয়র ফিরহাদ হাকিম এর জন্য পুরসভার ১৪৪ জন কাউন্সিলরকে তাঁদের নিজের নিজের ওয়ার্ডে হুকিং এবং বিদ্যুৎ চুরির জায়গাগুলি চিহ্নিত করতে বলেছেন এবং সে সম্পর্কে পুর কর্তৃপক্ষকে রিপোর্ট করতে বলেছেন।

এ বিষয়ে ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, ‘এই সমস্ত জায়গাগুলি চিহ্নিত করার পর আমরা সিইএসসি এবং পুলিশের সহযোগিতায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করব।’ এর পাশাপাশি হুকিং এবং বিদ্যুৎ চুরি নিয়ে সচেতনতামূলক প্রচার চালাবে কলকাতা পুরসভা। প্রসঙ্গত, বর্ষাকালে জমাজলে বাতিস্তম্ভ স্পর্শ করে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হওয়ার ঘটনা কলকাতায় বহুবার ঘটেছে। তা থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার বর্ষার সময় বাতিস্তম্ভের বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে রাখবে কলকাতা পুরসভা। এর পাশাপাশি বিপজ্জনকভাবে থাকা বিদ্যুতের তার শনাক্ত করা সম্ভব না হলে সে ক্ষেত্রে নাগরিকদের নিরাপদে থাকার জন্য প্রচার চালাবে কলকাতা পুরসভা।

পুরসভার বিদ্যুৎ বিভাগের একজন আধিকারিক বলেছেন, একবালপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মৃত্যুর প্রেক্ষিতে এবং বর্ষার আগে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসাবে এই পদক্ষেপ করা হয়েছে। বিভাগের মেয়র পারিষদ সন্দীপ রঞ্জন বক্সি জানান, গত বছর বর্ষাকালে দুই কিশোরের বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মৃত্যুর ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে পুরসভা বিপজ্জনক বিদ্যুতের তারগুলি শনাক্ত করার জন্য অনুসন্ধান চালাচ্ছে। ল্যাম্পপোস্টগুলি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সেখান থেকে বিদ্যুৎ চুরি হচ্ছে কিনা সেবিষয়ে নজরদারি চালানো হচ্ছে। মেয়র পারিষদ জানান, ‘আমরা বাতিস্তম্ভ থেকে বিদ্যুৎ চুরির জায়গাগুলি শনাক্ত করতে সিইএসসি এবং বেশ কয়েকটি থানার পুলিশদের নিয়ে একটি দল গঠন করেছি।’ উল্লেখ্য, গত রবিবার একবালপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। ভেজা কাপড় মেলতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন স্থানীয় বাসিন্দা ইজহার আখতার। তাঁকে বাঁচাতে গিয়ে তড়িদাহত হন শাশুড়ি মুনতাহা বেগম ও তাঁর মেয়ে খায়রুল নেশা। তড়িঘড়ি তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন