বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > নিউটাউনের পার্কে এবার বসল প্রবেশ মূল্য, বাসিন্দাদের চিঠি গেল কর্তৃপক্ষের কাছে
প্রাতঃভ্রমণ। (ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

নিউটাউনের পার্কে এবার বসল প্রবেশ মূল্য, বাসিন্দাদের চিঠি গেল কর্তৃপক্ষের কাছে

  • নিউটাউন সিটেজেন্স ওয়েলফেয়ার ফ্র‍্যাটারনিটির পক্ষ থেকে সম্পাদক সমীর গুপ্ত জানান, সকল আবাসিক নাগরিকদের কোনও শর্ত ছাড়াই অবাধে খেলার মাঠ ব্যবহার করতে দিতে হবে। খেলার মাঠ ব্যবহারে স্থানীয় নাগরিকদের অধিকার সবার আগে৷ নাগরিক স্বার্থের বিরুদ্ধে গিয়ে মাঠে ব্যবসা বাণিজ্য করা চলবে না।

এবার নিউটাউনের পার্কে সময়ের বেড়ি পরানোর অভিযোগ উঠল। নির্দিষ্ট সময়ের বাইরে পার্কে প্রবেশ করতে হলে দিতে হবে ফি। নিউটাউন কলকাতা ডেভেলপমেন্ট অথরিটির এই ফরমান ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক। তাহলে কী এটা আয় বাড়ানোর কৌশল?‌ এই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। এলাকাবাসী এই ফরমানের কথা জানতে পেরে ক্ষুব্ধ।

ঠিক কী ঘটেছে নিউটাউনে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, দিনের নির্দিষ্ট সাড়ে পাঁচ ঘন্টায় অবাধ প্রবেশ করা যাবে। আর তারপর পার্কে প্রবেশ করতে হলে দিতে হবে ৫০০ টাকা এন্ট্রি ফি৷ এই ফরমান ঘিরেই জোর বিতর্ক শুরু হয়েছে। নিউটাউন কলকাতা ডেভেলপমেন্ট অথরিটি সূত্রে খবর, তাদের এলাকায় ১০টি পার্ক। সেখানেই বসেছে নোটিশ বোর্ড।

কী লেখা আছে নোটিশ বোর্ডে? ‌নোটিশ বোর্ডে উল্লেখ করা হয়েছে, এই পার্কের রক্ষণাবেক্ষণের যাবতীয় দায়িত্ব নিউটাউন কলকাতা ডেভেলপমেন্ট অথরিটির। পার্ক ব্যবহার করা যাবে সকাল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। সকাল ৫টা থেকে সকাল সাড়ে ৮টা এবং সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত পার্কে জগিং, হাঁটাহাটি, ব্যায়াম করা যাবে। সকাল সাড়ে ৮টার পর যদি কেউ এই পার্কে প্রবেশ করতে চান তাঁকে পার্কে এন্ট্রি ফি বাবদ জমা দিতে হবে ৫০০ টাকা। এই ৫০০ টাকার সময় মূল্য তিন ঘন্টা৷

কী বক্তব্য নিউটাউনের বাসিন্দাদের?‌ এই ঘটনা নিয়ে নিউটাউনের বাসিন্দারা জানান, কেন তাঁদের পার্কে প্রবেশের জন্য ৫০০ টাকা প্রবেশ মূল্য দিতে হবে?‌ নিউটাউন সিটেজেন্স ওয়েলফেয়ার ফ্র‍্যাটারনিটির পক্ষ থেকে সম্পাদক সমীর গুপ্ত জানান, সকল আবাসিক নাগরিকদের কোনও শর্ত ছাড়াই অবাধে খেলার মাঠ ব্যবহার করতে দিতে হবে। খেলার মাঠ ব্যবহারে স্থানীয় নাগরিকদের অধিকার সবার আগে৷ নাগরিক স্বার্থের বিরুদ্ধে গিয়ে মাঠে ব্যবসা বাণিজ্য করা চলবে না। এমনকী আবাসিকদের পক্ষ থেকে এই চিঠি দেওয়া হয়েছে অথরিটিকে।

বন্ধ করুন