বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > কোনও সরকারের পক্ষেই একা এতবড় বিপর্যয় সামলানো সম্ভব নয়: দিলীপ ঘোষ
দিলীপ ঘোষ। মাঝে (PTI)
দিলীপ ঘোষ। মাঝে (PTI)

কোনও সরকারের পক্ষেই একা এতবড় বিপর্যয় সামলানো সম্ভব নয়: দিলীপ ঘোষ

  • দিলীপ ঘোষের কথায়, ‘এতদিনে পুরসভার একজনও লোককে দেখিনি। তারা জল ও বিদ্যুৎ পরিষেবা ঠিক করতে পারছে না।

আমফান পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়ালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সোমবার সকালে বিধাননগরে নিজের বাসভবনের কাছে গাছ কেটে রাস্তা পরিষ্কার করেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন বিজেপির কর্মীরা। এর পর দিলীপবাবু বলেন, এত বড় বিপর্যয় সরকারের একার পক্ষে সামলানো সম্ভব নয়। সাধারণ মানুষেরও হাত লাগানোর দরকার আছে। 

সোমবার সকালে দলীয় কর্মীদের নিয়ে নিজের বাসভবনের চারপাশে বেশ কয়েকটি গাছ কেটে রাস্তা পরিষ্কার করেন দিলীপবাবু। বিধাননগরের বহু রাস্তায় এখনো পড়ে রয়েছে গাছ। ফলে ঘুরপথে যাতায়াত করতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। 

কর্মযজ্ঞ শেষ হওয়ার পর সাংবাদিকদের দিলীপবাবু বলেন, ‘আমি রোজ সকালে বেরোই। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন জায়গায় রাস্তায় গাছ পড়ে রয়েছে। বিধাননগরে প্রবীণদের বাস। তাঁদের পক্ষে গাছ কেটে রাস্তা পরিষ্কার করা সম্ভব নয়। তাই আমরা রাস্তায় নেমেছি। আজ আমি দলের কর্মীদেরও ডেকে এনেছি।’

দিলীপ ঘোষের কথায়, ‘এতদিনে পুরসভার একজনও লোককে দেখিনি। তারা জল ও বিদ্যুৎ পরিষেবা ঠিক করতে পারছে না। আর এতবড় বিপর্যয় সরকারের একার পক্ষে সামলানো সম্ভব নয়। সাধারণ মানুষকেও হাত লাগাতে হবে। সরকার তাদের মতো করুক। কিন্তু সাধারণ মানুষ হাত লাগালে কাজটা তাড়াতাড়ি হবে।’

বলে রাখি, ঘূর্ণিঝড় আমফানের জেরে এখনো বিপর্যস্ত কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক এলাকা। বিদ্যুৎ ফেরেনি বহু জায়গায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসন বিপর্যয় মোকাবিলায় ব্যর্থ বলে দাবি করছে বিরোধীরা। এই পরিস্থিতিতে জনগণকে সরকারের পাশে থাকার বার্তা দিলেন দিলীপ।

বলে রাখি, গতকাল এক সাংবাদিক বৈঠকে পশ্চিমবঙ্গের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেছিলেন। দেশে করোনা সংক্রমণের জন্য মোদীকে দায়ী করা যায় না। 

 

 

বন্ধ করুন