বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ বাতিল করল ৯৪ জন শিক্ষকের চাকরি, টাকার বিনিময়ে কি নিয়োগ?‌

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ বাতিল করল ৯৪ জন শিক্ষকের চাকরি, টাকার বিনিময়ে কি নিয়োগ?‌

বাতিল হয়ে গেল ৯৪ জন শিক্ষকের চাকরি। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

আগামী সোমবার থেকে এই নির্দেশিকা কার্যকর হবে বলে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সূত্রে খবর। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশেই এই পদক্ষেপ বলে দাবি করছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। যদিও এই বিষয় নিয়ে কোন মন্তব্য করেননি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল। তবে ওই ৯৪ জন শিক্ষককে চিহ্নিত করে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

সামনেই কালীপুজো। আর তার মধ্যেই বাতিল হয়ে গেল ৯৪ জন শিক্ষকের চাকরি। এই নিয়ে এখন জোর আলোচনা শুরু হয়েছে। আজ, শনিবার কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ মেনে শিক্ষকদের চাকরি বাতিল করল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। চাকরি যাঁরা হারালেন তাঁরা সকলেই মানিক ভট্টাচার্যের আমলে নিযুক্ত হন। সুতরাং অভিযোগ ওঠে, পরীক্ষায় পাশ না করে টাকার বিনিময়ে প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ হয়েছিলেন তাঁরা। নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তের মধ্যেই এমন পদক্ষেপ বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। ২০১৪ সালের টেট এবং ২০১৬ সালের নিয়োগ হওয়া এই শিক্ষকদের চাকরি বাতিলের নির্দেশিকা চিঠি দিয়ে জানানো হল একাধিক জেলার ডিপিএসসি চেয়ারম্যানদের।

কেন চাকরি বাতিল হল? সূত্রের খবর, ৯৪ জনই টেট পাশ করেননি। বরং অর্থের বিনিময়ে প্রাথমিকে শিক্ষক পদে নিয়োগ হন। একটি মামলায় বিচারপতি অমৃতা সিনহা প্রশ্ন তোলেন, কেমন করে টেট পাশ না করে চাকরি পেলেন প্রার্থীরা?‌ পর্ষদের কাছে রিপোর্ট তলবও করেন বিচারপতি। সেই রিপোর্টে পর্ষদ জানায়, ৯৪ জন এমন আছেন, যাঁরা টেট পাশ না করেই চাকরি পেয়েছেন। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ওই চাকরিপ্রার্থীদের ডেকে পাঠিয়ে তদন্ত শুরু করে আদালতের নির্দেশে। ওই চাকরিপ্রার্থীরা প্রয়োজনীয় নথি জমা না দিতে পারেননি। তাই তাঁদের চাকরি বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় পর্ষদ।

তারপর ঠিক কী হল?‌ কলকাতা হাইকোর্টে পেশ করা রিপোর্টে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ জানিয়েছিল, ওই ৯৪ জনকে চিহ্নিত করে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কমিশনের মাধ্যমে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তখন নথিপত্র পেশের সময় বেঁধে দেয় আদালত। আর বলা হয়, যদি তাঁরা সময়ের মধ্যে উপযুক্ত নথি দেখাতে না পারে, তবে কড়া ব্যবস্থা হিসেবে চাকরি বাতিল হবে। এরা টাকার বিনিময়ে চাকরি পেয়েছেন। তাই তাঁদের চাকরি বাতিল করার সুপারিশ করে আদালত। নথিপত্র যা সামনে আনা হয় তাতে ৯৪ জনের নিয়োগে গাফিলতি প্রমাণ হয়। আর আজ, শনিবার ৯৪ জন শিক্ষকের নিয়োগ বাতিলের নির্দেশ দিল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

আরও পড়ুন:‌ রাজ্যপালের নিযুক্ত উপাচার্যরা কি অনুপ্রবেশকারী?‌ বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন ব্রাত্য

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ আগামী সোমবার থেকে এই নির্দেশিকা কার্যকর হবে বলে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সূত্রে খবর। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশেই এই পদক্ষেপ বলে দাবি করছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। যদিও এই বিষয় নিয়ে কোন মন্তব্য করেননি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল। তবে ওই ৯৪ জন শিক্ষককে চিহ্নিত করে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কমিশনের মাধ্যমে তাঁদের নোটিশ পাঠানো হয়েছে। ২০১৪ এবং ২০১৬ সালে এই ৯৪ জন নিয়োগ হন। তাঁদের চাকরি বাতিলের নির্দেশ দিয়ে চিঠি সংশ্লিষ্ট ডিপিএসসি চেয়ারম্যানদের কাছে চলে গিয়েছে।

বাংলার মুখ খবর

Latest News

Video: কাশ্মীরের ডাল লেকে মহরম ঘিরে কিছু দৃশ্য একনজরে ছবিতে লালের চিহ্নমাত্র নেই, তবু কোকাকোলার ক্যানটি লালই দেখাচ্ছে! কেন জানেন ৩৫ বছর পর, কার্গিল নায়ক প্রাক্তন মেজর জেনারেলের পুত্র বসলেন পিতার রেখে যাওয়া পদে শাহরুখের নায়িকাকে ঘিরে হাজারো নগ্ন শরীর, বাড়ি ফিরে বাথরুমে দৌড়ালেন সুচিত্রা! দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে ফের বিদেশে পা, সিডনিতে সুপার কিংসের নতুন ক্রিকেট অ্যাকাডেমি এবার থেকে ক্লাস ১২ এর পরীক্ষা দু'বার করে নেবে CBSE? হাতির মল হাতে করে ঘেঁটে কাগজ তৈরি করলে দিব্যজ্যোতি দত্ত, দেখুন কাণ্ড... মেনুতে pistachio tigers milk,আম্বানিদের বিয়েতে অতিথিদের বাঘের দুধ পরিবেশ করা হয়? ফিল্ডিং যদি শিল্প হয়, দক্ষ শিল্পী চাপম্যান, মোহিত করলেন LPL-এর অবিশ্বাস্য ক্যাচে ২২৮ কেজি সোনা গায়েব কেদারনাথ থেকে? শঙ্করাচার্যের দাবির জবাব দিল মন্দির কমিটি

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.