অবশেষে সাত বছরের লড়াইয়ে প্রায় ইতির পথে (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
অবশেষে সাত বছরের লড়াইয়ে প্রায় ইতির পথে (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

ব্যর্থ হচ্ছে ফাঁসি আটকানোর একের পর এক চেষ্টা, এবার খারিজ মুকেশের আর্জি

যত সময় যাচ্ছে, তত নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ফাঁসি কার্যকরের পথ আরও পরিষ্কার হচ্ছে।

শেষমুহূর্তে আদালতে আর্জি জানিয়ে ফাঁসি স্থগিতের মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে নির্ভয়াকাণ্ডের দোষীরা। কিন্তু যত সময় যাচ্ছে, তত নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ফাঁসি কার্যকরের পথ আরও পরিষ্কার হচ্ছে।

আরও পড়ুন : প্রস্তুত তিহাড়, ফাঁসির একদিন আগে চুপচাপ নির্ভয়াকাণ্ডের ৪ আসামি

২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর সেই নৃশংস ঘটনার রাতে সে দিল্লিতে ছিল না বলে আজ সুপ্রিম কোর্টে যায় নির্ভয়াকাণ্ডের এক মুকেশ সিং। যে আর্জি অবশ্য গত বুধবারই খারিজ করে দিয়েছিল দিল্লি হাইকোর্ট। সেই একই পথে হেঁটে মুকেশের আর্জি খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত। রায়ে জানানো হয়, মুকেশের আর্জিতে কোনও ভিত্তি নেই। আর এখন তার সামনে কোনও আইনি পথ থোলা নেই। এই পর্যায়ে নতুন কোন প্রমাণও গ্রাহ্য করা যাবে না।

এদিকে, দিনের শুরুতেই এক দণ্ডিত পবন গুপ্তের ফাঁসি আটকানোর কৌশল সুপ্রিম কোর্টে ধাক্কা খায়। সেই নৃশংস ঘটনার সময় সে নাবালক ছিল বলে পবন যে দাবি করেছিল, তা গত ২০ জানুয়ারি খারিজ করে দিয়েছিল শীর্ষ আদালত। আজ পবনের কিউরেটিভ পিটিশনও খারিজ করে দেয় ছয় সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ। বিচারপতি এন ভি রামান্নার নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ জানায়, মৌখিক শুনানির আর্জি খারিজ করা হয়েছে। কিউরেটিভ পিটিশন ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় নথি খুঁটিয়ে দেখা হয়েছে। রূপা হুরা বনাম অশোক হুরা মামলা সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে কোনও মামলা তৈরি করা যায়নি। সেজন্য পবনের কিউরেটিভ পিটিশন খারিজ করে দেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন : খারিজ পবনের আর্জি, কাল ফাঁসি নির্ভয়ার দণ্ডিতদের, সুপ্রিম কোর্টে মুকেশ

পাশাপাশি, পবন ও অপর দণ্ডিত অক্ষয় সিংয়ের দ্বিতীয় প্রাণভিক্ষার আর্জিতে সাড়া দেননি রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। ফলে আইনি মহলের একাংশ কার্যত নিশ্চিত, আগামী ২০ মার্চ সকাল সাড়ে ৫টায় নির্ভয়ার পরিবারের দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান হতে চলেছে।

বন্ধ করুন