বাংলা নিউজ > ক্রিকেট > এশিয়া কাপ > SL vs AFG: রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে ২ রানে হার আফগানিস্তানের, কষ্টার্জিত জয়ে সুপার ফোরে শ্রীলঙ্কা

SL vs AFG: রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে ২ রানে হার আফগানিস্তানের, কষ্টার্জিত জয়ে সুপার ফোরে শ্রীলঙ্কা

ব্যর্থ হল রশিদদের লড়াই। ছবি- এপি।

Sri Lanka vs Afghanistan: ৩৭.১ ওভারে ২৯২ রান তুলে জিততে হতো আফগানিস্তানকে। তারা ৩৭.৪ ওভারে জয়ের দোরগোড়া থেকে খালি হাতে ফেরে। আফগানিস্তানের হয়ে সব থেকে কম ২৪ বলে হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েন মহম্মদ নবি।

রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কার কাছে পরাজিত হয়ে চলতি এশিয়া কাপ থেকে বিদায় নিল আফগানিস্তান। ম্যাচ হারলেও আফগানিস্তান লাহোরে যে রকম লড়াই চালায়, তা কুর্নিশ আদায় করে নেয় ক্রিকেট বিশ্বের। শ্রীলঙ্কা কার্যত খাদের কিনারা থেকে ফিরে সুপার ফোরের যোগ্যতা অর্জন করে।

লাহোরের গদ্দাফি স্টেডিয়ামে টস জিতে শুরুতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন শ্রীলঙ্কা দলনায়ক দাসুন শানাকা। কুশল মেন্ডিসের চওড়া ব্যাটে ভর করে তারা নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটের বিনিময়ে ২৯১ রানের বড়সড় ইনিংস গড়ে তোলে।

যদিও নিশ্চিত শতরান হাতছাড়া করেন মেন্ডিস। তিনি ৬টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে ৮৪ বলে ৯২ রান করে দুর্ভাগ্যজনক রান-আউটের শিকার হন। এছাড়া ৪০ বলে ৪১ রান করেন ওপেনার পাথুম নিশঙ্কা। তিনি ৬টি চার মারেন। ৬টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৩৫ বলে ৩২ রান করে সাজঘরে ফেরেন অপর ওপেনার দিমুথ করুণারত্নে।

পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে চরিথ আসালঙ্কা ২টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৪৩ বলে ৩৬ রান করেন। ৩টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৩৯ বলে ৩৩ রান করে অপরাজিত থাকেন দুনিথ ওয়েলালাগে। নয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমে মাহিশ থিকসানা ২৪ বলে ২৮ রানের কার্যকরী যোগদান রাখেন। তিনি ২টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন। সাদিরা সমরাবিক্রমে ৩, ধনঞ্জয়া ডি'সিলভা ১৪ ও দাসুন শানাকা ৫ রান করে আউট হন।

আফগানিস্তানের হয়ে ১০ ওভারে ৬০ রান খরচ করে ৪টি উইকেট তুলে নেন গুলবদিন নায়েব। রশিদ খান ১০ ওভারে ৬৩ রান খরচ করে ২টি উইকেট পকেটে পোরেন। ১০ ওভারে ৬০ রান খরচ করে ১টি উইকেট সংগ্রহ করেন মুজিব উর রহমান।

এশিয়া কাপ সংক্রান্ত যাবতীয় খবর, তথ্য-পরিসংখ্যান ও লাইভ স্কোর আপডেটে চোখ রাখতে ক্লিক করুন এখানে

নেট রান-রেটের নিরিখে বি-গ্রুপের প্রথম দুইয়ে উঠে আসতে হলে আফগানিস্তানকে ২৯২ রান তুলে ম্যাচ জিততে হতো ৩৭.১ বা তারও কম ওভার খরচ করে। নতুবা জিতেও সুপার ফোরের টিকিট হাতে পাওয়ার সম্ভাবনা ছিল না আফগানদের সামনে।

পালটা ব্যাট করতে নেমে আফগানিস্তান রীতিমতো ঝড় তোলে। তবে তীরে এসে তরী ডোবে তাদের। একসময় ৩৭ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৮৯ রান তুলে ফেলেন রশিদরা। সুতরাং, ১ বলে ৩ রান করলেই ম্যাচ জয়ের পাশাপাশি সুপার ফোরের যোগ্যতা অর্জন করত আফগানিস্তান। তবে তারা ৩৭.৪ ওভারে ২৮৯ রানে অল-আউট হয়ে যায়।

রশিদরা যদি ৩৭.৪ ওভারে ২৯৫ রান সংগ্রহ করতে পারতেন, তাহলেও তাঁরা সুপার ফোরের যোগ্যতা অর্জন করতে পারতেন। তবে ৩৭.১ ওভারে লক্ষ্য পৌঁছতে না পেরে হতোদ্যম দেখায় আফগান ব্যাটারদের। শেষমেশ ২ রানের রুদ্ধশ্বাস জয়ে শ্রীলঙ্কা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে সুপার ফোর রাউন্ডে ওঠে। এবারের মতো অভিযান শেষ হয় আফগানদের।

আরও পড়ুন:- World Cup 2023: বাতিলের তালিকা দীর্ঘ, ২০১৯-এ ভারতীয় দলে থাকা এই ৯ ক্রিকেটার ২০২৩-এর বিশ্বকাপ স্কোয়াডে নেই

আফগানিস্তানের হয়ে ৬টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে মাত্র ২৪ বলে হাফ-সেঞ্চুরি করেন মহম্মদ নবি। ওদেশের ওয়ান ডে ক্রিকেটের ইতিহাসে এটি সব থেকে কম বলে করা অর্ধশতরানের রেকর্ড। নবি ৬টি চার ও ৫টি ছক্কার সাহায্যে ৩২ বলে ৬৫ রানের ধ্বংসাত্মক ইনিংস খেলে আউট হন।

৩টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৬৬ বলে ৫৯ রান করেন ক্যাপ্টেন হাশমতউল্লাহ শাহিদি। রহমত শাহ ৪৫, গুলবদিন নায়েব ২২, করিম জানাত ২২, নাজিবউল্লাহ জাদরান ২৩ ও রশিদ খান অপরাজিত ২৭ রান করেন। শ্রীলঙ্কার কাসুন রজিথা ৪টি এবং দুনিথ ওয়েলালাগে ও ধনঞ্জয়া ডি'লিসভা ২টি করে উইকেট নেন। ম্যাচের সেরা হন কুশল মেন্ডিস।

বন্ধ করুন