বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > ভোটের আগের রাতে কেশপুরে তৃণমূল কর্মীকে কুপিয়ে খুন, অভিযুক্ত বিজেপি, গ্রেফতার ৭
ভোটের আগের রাতে কেশপুরে তৃণমূল কর্মীকে কুপিয়ে খুন, অভিযুক্ত বিজেপি। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
ভোটের আগের রাতে কেশপুরে তৃণমূল কর্মীকে কুপিয়ে খুন, অভিযুক্ত বিজেপি। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

ভোটের আগের রাতে কেশপুরে তৃণমূল কর্মীকে কুপিয়ে খুন, অভিযুক্ত বিজেপি, গ্রেফতার ৭

  • দ্বিতীয় দফার ভোট শুরুর আগেই কেশপুরে রাজনৈতিক হিংসা।

দ্বিতীয় দফার ভোট শুরুর আগেই কেশপুরে রাজনৈতিক হিংসা। দাদপুরে এক তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীকে কুপিয়ে খুনের অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। বিষয়টি নিয়ে বিজেপির তরফে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। ঘটনায় ইতিমধ্যে সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বুধবার রাতে কেশপুরের চার নম্বর অঞ্চলের হরিহরচক এলাকায় তৃণমূলে কার্যালয়ে খাওয়া-দাওয়া হচ্ছিল। ছিলেন উত্তর দলুই (৪০) নামে ওই কর্মী। অভিযোগ, রাত ১০ টা নাগাদ বিজেপি-আশ্রিত দুষ্কৃতীরা সেখানে আসে। তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে বচসা বেঁধে যায়। তারইমধ্যে উত্তমকে টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়া হয়। তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ের থেকে কিছুটা দূরেই একটি কালভার্টের কাছে নিয়ে গিয়ে ছুরি দিয়ে কোপানো হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় একটি ট্রাক্টরে করে তাঁকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ এবং হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের জেরে উত্তমের মৃত্যু হয়।

তৃণমূল কর্মীদের অভিযোগ, বিজেপির ৩০-৩৫ জনের একটি দল তৃণমূলকর্মীকে কুপিয়েছে। উত্তমকে বাঁচানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু তার আগেই উত্তমকে ছুরি দিয়ে কোপানো হয় বলে অভিযোগ। বৃহস্পতিবার সকালে দলীয় কার্যালয়ের সামনে চাপ-চাপ রক্তের দাগ দেখা গিয়েছে। একটি ছুরিও উদ্ধার করেছেন তৃণমূলকর্মীরা। তাঁদের দাবি, সেই ছুরি দিয়েই উত্তমকে কোপানো হয়েছিল। যেখানে কোপানো হয়েছে, সেখান থেকে উত্তমের বাড়ি ঢিলছোড়া দূরত্বে। বৃহস্পতিবার সকালে উত্তমের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কাঁদতেই কাঁদতেই স্ত্রী কোনওক্রমে বলেন, ‘বিজেপির কয়েকজন খুন করেছে। তৃণমূলকর্মীরা বাঁচানোর চেষ্টা করেছিলেন। লাঠি নিয়ে এগিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি।’ এলাকার পরিবেশ রীতিমতো থমথমে আছে। ভোটগ্রহণ শুরু হলেও ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

খুনের ঘটনায় ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশনে প্রাথমিক রিপোর্ট জমা পড়েছে। প্রথম দফার ভোটের আগের রাতেও অশান্তির খবরের জেরে এবার নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছিল। রাতে টহলদারি বাড়ানো হয়েছিল। তারপরও কীভাবে সেই হিংসা এড়ানো গেল না, তা খতিয়ে দেখা হবে বলে সূত্রের খবর। আপাতত ময়নাতদন্তের জন্য উত্তমের দেহ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

বন্ধ করুন