বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > এবার আর বাসি রুটি দেখে মুখ ফেরাবেন না, টাটকা রুটির চেয়েও উপকারিতা বেশি এর
এবার আর বাসি রুটি দেখে মুখ ফেরাবেন না, টাটকা রুটির চেয়েও উপকারিতা বেশি এর
এবার আর বাসি রুটি দেখে মুখ ফেরাবেন না, টাটকা রুটির চেয়েও উপকারিতা বেশি এর

এবার আর বাসি রুটি দেখে মুখ ফেরাবেন না, টাটকা রুটির চেয়েও উপকারিতা বেশি এর

  • গমের আটা দিয়ে তৈরি রুটি অধিক পুষ্টিকর ও সহজপাচ্য হয়। তবে এই রুটি বাসি হয়ে গেলে এর গুণাগুণ আরও বৃদ্ধি পায়।

অনেকেই বাসি রুটির নাম শুনেই মুখ বেঁকিয়ে নেন। অনেকের এর স্বাদ ভালো লাগে না, আবার অনেকে মনে করে বাসি রুটি খেলে স্বাস্থ্যের ক্ষতি হতে পারে। কিন্তু আপনাদের কী জানা আছে, টাটকা রুটির চেয়ে বাসি রুটি অধিক পুষ্টিকর। গমের আটা দিয়ে তৈরি রুটি অধিক পুষ্টিকর ও সহজপাচ্য হয়। তবে এই রুটি বাসি হয়ে গেলে এর গুণাগুণ আরও বৃদ্ধি পায়। বাসি রুটির উপকারিতা সম্পর্কে জানুন এখানে—

১. দুধের সঙ্গে বাসি রুটি মিশিয়ে খেলে ডায়াবেটিজ ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। বাসি রুটিতে কিছু লাভজনক ব্যাক্টিরিয়া উৎপন্ন হয়, যা শরীরের পক্ষে স্বাস্থ্যকর। আবার বাসি রুটি রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণও কম করে।

২. আবার দুধের সঙ্গে বাসি রুটি খেলে পেটের সমস্যা থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়। এর ফলে অ্যাসিডিটি, কোষ্ঠ-কাঠিন্যের মতো সমস্যা দূর হয়। বাসি রুটিতে ফাইবার থাকায়, হজমে সাহায্য করে।

৩. শরীরে তাপমাত্রার ভারসাম্য বজায় রাখতে এই রুটি সাহায্য করে। দুধের সঙ্গে বাসি রুটি খেলে শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে। বিশেষত গরম কালে এটি খেলে স্ট্রোকের ঝুঁকিও কমে যায়।

৪. কেউ যদি অধিক রোগা থাকে, তা হলে তাঁদের দুধের সঙ্গে বাসি রুটি খাওয়া উচিত। নৈশাহারে বাসি রুটি খাওয়া অধিক উপযোগী।

বন্ধ করুন