বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ওমিক্রনের বিপদ ঘণ্টি বাজাল কেন্দ্র, সংক্রমণ রুখতে পদক্ষেপের নির্দেশ রাজ্যগুলিকে
ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই
ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই

ওমিক্রনের বিপদ ঘণ্টি বাজাল কেন্দ্র, সংক্রমণ রুখতে পদক্ষেপের নির্দেশ রাজ্যগুলিকে

  • ভারতে একলাফে অনেকটাই বেড়েছে ওমিক্রন সংক্রমণ। রবিবার দেশে ওমিক্রনের ১৫৬টি মামলা সামনে আসে।

কেন্দ্র সোমবার রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে একটি আদেশ জারি করে স্থানীয় পর্যায়ে কঠোর ভাবে করোনা বিধি লাগু করতে বলল। পরিস্থিতির মূল্যায়নের উপর ভিত্তি করে যথাযথ পরিকাঠামো প্রস্তুত এবং কোভিড নিয়ন্ত্রণে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয় জেলা প্রশাসনগুলিকে।

নির্দেশিকায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক বলেছে, করোনাভাইরাসের নতুন অতি সংক্রামক ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় ভাবে বা জেলা স্তরে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার কথা বিবেচনা করতে পারে রাজ্যগুলি। উত্সবের মরশুমে যেখানে যেরম প্রয়োজন, সেরম বিধিনিষেধ আরোপের কথা বলা হয়েছে। বিধিনিষেধ আরোপের দায়িত্ব পুরোপুরি স্থানীয় প্রশাসনকে দেওয়া হয়েছে।

রাজ্যগুলিকে লেখা চিঠিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় ভাল্লা বলেন, ‘অনেক রাজ্যে ডেল্টা ভেরিয়েন্টের উপস্থিতি বেশি এবং সেখানে ওমিক্রন কেসও সনাক্ত হচ্ছে, সেখানে মূল্যায়নের উপর ভিত্তি করে স্থানীয় স্তরে তথ্য বিশ্লেষণের মাধ্যমে দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে কঠোর এবং তাত্ক্ষণিক নিয়ন্ত্রণমূলক পদক্ষেপের প্রয়োজন রয়েছে।’

এদিকে ভারতে একলাফে অনেকটাই বেড়েছে ওমিক্রন সংক্রমণ। রবিবার দেশে ওমিক্রনের ১৫৬টি মামলা সামনে আসে। দেশে এখন মোট ওমিক্রন কেসের সংখ্যা ৫৭৮। হিমাচলপ্রদেশ ও মধ্যপ্রদেশে ওমিক্রন থাবা বসিয়েছে। মধ্যপ্রদেশে একদিনেই ৯টি ওমিক্রন কেস শনাক্ত হয়েছে। এদিকে দিল্লিতে একদিনে ৬৩ এবং মহারাষ্ট্রে একদিনে ৩৩টি ওমিক্রন কেস ধরা পড়েছে। এর জেরে সর্বোচ্চ ওমিক্রন সংক্রমণের তালিকায় মহারাষ্ট্রকে পিছনে ফেলল দিল্লি। সরকারী তথ্য অনুসারে, দিল্লিতে মোট ওমিক্রন কেসের সংখ্যা ১৪২। দেশে সর্বাধিক সংখ্যক ওমিক্রন সংক্রমণের রিপোর্ট রাজধানীতেই মিলেছে। তারপরেই তালিকায় এখন আছে মহারাষ্ট্র। সেরাজ্যে মোট ওমিক্রন আক্রান্ত ১৪১। তাছাড়া কেরলে ৫৭, গুজরাতে ৪৯, রাজস্থানে ৪৩, তেলেঙ্গানায় ৪১, তামিলনাড়ুতে ৩৪ এবং কর্ণাটকে ৩১টি ওমিক্রন কেস ধরা পড়েছে।

বন্ধ করুন