বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভারতের সঙ্গে প্রথম সরকারি কূটনৈতিক বৈঠক তালিবানের, কী নিয়ে আলোচনা?
বিমানবন্দরের বাইরে তালিবানের পাহারা. REUTERS (ফাইল ছবি )
বিমানবন্দরের বাইরে তালিবানের পাহারা. REUTERS (ফাইল ছবি )

ভারতের সঙ্গে প্রথম সরকারি কূটনৈতিক বৈঠক তালিবানের, কী নিয়ে আলোচনা?

  • শনিবারই তালিবানের সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে ৪৬ মিনিটের ভিডিওতে জানানো হয়েছিল, তালিবান ভারতের সঙ্গে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক বন্ধনে যুক্ত হতে চায়।

কাতারে বসবাসকারী ভারতের দূতের সঙ্গে বৈঠক তালিবান কর্তার। তালিবানের অনুরোধে দোহাতে ভারতীয় দূতাবাসে দুপক্ষের মধ্যে বৈঠক হয়। ভারতীয় রাষ্ট্রদূত দীপক মিত্তলের সঙ্গে দোহাতে থাকা তালিবান আধিকারিক Sher Mohammad Abas Stanekzai ( Head of Talibans PoliticalOffice in Doha) বৈঠক হয়েছে। কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে এর আগে হয়তো ঘুরপথে তালিবানের সঙ্গে বার্তা বিনিময় করেছে ভারত। কিন্তু এই প্রথম সরকারিভাবে তালিবানের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হয়েছে ভারত। বিদেশ দফতরের সংক্ষিপ্ত বার্তায় একথা জানানো হয়েছে। এবার দেখা যাক কী কী বিষয় নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়েছে? 

প্রথমত ,সুরক্ষা, নিরাপত্তা ও আফগানিস্তানে থাকা ভারতীয় নাগরিকদের দ্রুত দেশে ফেরানোর ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে। পাশাপাশি আফগান নাগরিক বিশেষত সংখ্যালঘু যাঁরা ভারতে আসতে চান সেই প্রসঙ্গও আলোচনায় উঠেছে। ভারতীয় রাষ্ট্রদূত সাফ জানিয়ে দিয়েছেন আফগানিস্তানের মাটিকে যেন কোনওভাবেই ভারত বিরোধী কার্যকলাপ ও সন্ত্রাসবাদের আঁতুরঘর হিসাবে ব্যবহার করা না হয়।

তালিবানের প্রতিনিধি ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে নিশ্চিত করেছেন যে এই ইস্যুগুলিকে ইতিবাচকভাবে বিবেচনা করা হবে। অভিজ্ঞমহলের মতে, দেশ ও দেশের নাগরিকদের সুরক্ষা ভারতের কাছে সর্বদা অগ্রাধিকার পায়। ইতিমধ্যেই আফগানিস্তানে আটকে থাকা অনেককেই ভারতে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয়েছে। তবে ভারত চায় দেশে আসতে ইচ্ছুক সকল ভারতীয়কেই নিরাপদে ফিরিয়ে আনা সুনিশ্চিত করা। সেই প্রসঙ্গও এদিন আলোচনায় তোলা হয়েছে। পাশাপাশি তালিবানের দখলে চলে যাওয়া আফগানিস্তানকে যাতে কোনওভাবে কারোর ইন্ধনে ভারত বিরোধী কার্যকলাপের জন্য ব্যবহার করা না হয় সেটাও নিশ্চিত করতে চাইছে ভারত। 

প্রসঙ্গত হিন্দুস্তান টাইমস গত জুন মাসেই প্রথমবার জানিয়েছিল ভারত বিভিন্ন তালিবান গ্রুপের সঙ্গে বার্তা বিনিময় করতে চাইছে। পাকিস্তান প্রভাব বহির্ভূত তালিবান নেতাদের সঙ্গে কূটনৈতিকস্তরে যোগাযোগ করতে চাইছিল ভারত। তবে ১৫ই অগস্ট কাবুল দখল করার পর এটাই প্রথম তালিবানের সঙ্গে সরকারি মিটিং বলে স্বীকার করা হয়েছে। পাশাপাশি তালিবান এই মিটিংয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছিল, এটা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

 Sher Mohammad Abas Stanekzai কে তালিবানের সঙ্গে সমঝোতাকারী দলের দু নম্বর সদস্য হিসাবে গণ্য করা হয়। শনিবারই তালিবানের সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে ৪৬ মিনিটের ভিডিওতে তিনি জানিয়েছিলেন তালিবান ভারতের সঙ্গে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক বন্ধনে যুক্ত হতে চায়। তিনি স্বীকার করেছেন এই উপমহাদেশে ভারত খুব গুরুত্বপূর্ণ দেশ।

 

বন্ধ করুন