বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘‌বাংলায় শাসনব্যবস্থা চিন্তার বিষয়’‌, রাজস্থানে গিয়ে সমালোচনা করলেন রাজ্যপাল
জগদীপ ধনখড় (PTI)

‘‌বাংলায় শাসনব্যবস্থা চিন্তার বিষয়’‌, রাজস্থানে গিয়ে সমালোচনা করলেন রাজ্যপাল

  • রাজ্যের সঙ্গে বিবাদ প্রথম থেকেই রয়েছে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের। সম্প্রতি হলদিয়ায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিচারপতিদের একাংশ তল্পিবাহক হয়ে কাজ করছেন বলে মন্তব্য করেন তা নিয়ে মুখ্যসচিবকে ৬ জুনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলেন রাজ্যপাল। অথচ আজ তিনিই রাজস্থানে।

নবান্ন–রাজভবন সংঘাত আর বাংলায় থেমে থাকল না। এবার তা পৌঁছে গেল রাজস্থানে। সৌজন্যে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। বাংলার বাইরে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কড়া সমালোচনা করলেন তিনি। রাজস্থানে একটি অনুষ্ঠানে পশ্চিমবঙ্গের সরকারের বিরুদ্ধে সরাসরি আক্রমণ বাংলার রাজ্যপাল। রাজস্থানের উদয়পুরে গিয়ে বাংলার পরিস্থিতি নিয়ে জগদীপ ধনখড় অভিযোগ করেন, বাংলায় আইনের শাসন নেই। শাসকের আইন চলছে। আর এই নিয়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

ঠিক কী বলেছেন রাজ্যপাল?‌ রাজস্থানে এসে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় বলেন, ‘‌রাজ্যপাল হিসেবে শোচনীয় পরিস্থিতির সাক্ষী হতে হয়েছে। ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনা ঘটেছে। বাংলায় শাসনব্যবস্থা চিন্তার বিষয়। বাংলায় আইনের শাসন নেই। শাসকের আইন চলছে। ভোটের পর যে হিংসা হয়েছে। গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় ভোট দেওয়ার পরিণামে মৃত্যু দেখেছি।’‌

ঠিক কী বলেছে তৃণমূল কংগ্রেস? এই কথা প্রকাশ্যে আসার পর‌ কড়া নিন্দা করা হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে। এই বিষযে তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক কুণাল ঘোষ বলেন, ‘‌এটা অত্যন্ত নিন্দাজনক। ঘুরে ঘুরে বাংলার কুৎসা করছেন উনি। বিজেপি হেরেছে বলে ওঁর রাগ। কেন্দ্রের নির্বাচন কমিশন বলে দিল ফলস ভোট হয়নি। আর উনি এসব বলে বেড়াচ্ছেন। ওঁর এটাও বলা উচিত। রাজ্য প্রকল্পে সেরা হচ্ছে। পুরষ্কার পাচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের রিপোর্ট বলছে বাংলা সেরা। বরং বাংলাকে অপমান করতে শুরু করেছেন। রাজ্যপালের পদের রক্ষাকবচ নিয়ে উনি বাংলার অসম্মান করছেন। উনি বাংলার অন্তরাত্মাকে আঘাত করছেন।’‌

উল্লেখ্য, রাজ্যের সঙ্গে বিবাদ প্রথম থেকেই রয়েছে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের। সম্প্রতি হলদিয়ায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিচারপতিদের একাংশ তল্পিবাহক হয়ে কাজ করছেন বলে মন্তব্য করেন তা নিয়ে মুখ্যসচিবকে ৬ জুনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলেন রাজ্যপাল। অথচ আজ তিনিই রাজস্থানে। আর কলকাতা হাইকোর্টে এই নিয়ে যে মামলা হয়েছিল তার সারবত্ত্বা নেই বলে খারিজ করে দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের বিধানসভায় বাংলা শাসনব্যবস্থা নিয়ে কটাক্ষ করেছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তারও আগে সংসদে বক্তব্য রাখার সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বাংলা নিয়ে কটাক্ষ করেছিলেন।

বন্ধ করুন