বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিরল রোগের চিকিৎসায় সবথেকে দামী ১৬ কোটির ওষুধ পেল শিশু, বিশ্ব দাঁড়িয়েছে পাশে
বিশ্বের সবথেকে দামী ওষুধ প্রয়োগ করা হল হায়দরাবাদের কিশোরকে (নিজস্ব চিত্র)
বিশ্বের সবথেকে দামী ওষুধ প্রয়োগ করা হল হায়দরাবাদের কিশোরকে (নিজস্ব চিত্র)

বিরল রোগের চিকিৎসায় সবথেকে দামী ১৬ কোটির ওষুধ পেল শিশু, বিশ্ব দাঁড়িয়েছে পাশে

  • হায়দরাবাদের তিন বছর বয়সী ওই শিশু মেরুদণ্ডের বিরল রোগে ভুগছে

হায়দরাবাদের বাসিন্দা তিনবছরের শিশু অয়ংশ মেরুদণ্ডের বিরল রোগে ভুগছে। অবশেষে তাকে বিশ্বের সবথেকে দামী ওষুধ ZOLGENSMA প্রয়োগ করা হল। ওষুধের দাম ১৬ কোটি টাকা। প্রায় সাড়ে তিন মাসের মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সংগ্রহ করা দানে কেনা হয়েছে এই ওষুধ। প্রায় ৬৫ হাজার দাতা এগিয়ে এসেছেন ওষুধ কেনার জন্য। সূত্রের খবর, আমেরিকার নোভার্টিস থেকে ৮ই জুন এই ওষুধ আনা হয়েছে। তবে ওষুধ আনার  জন্য ব্যাপক কর ছাড় দিয়েছে সরকার।

বুধবার সকালে ওই শিশুর শরীরে টিকা প্রয়োগ করা হয়। সেকেন্দ্রবাদের একটি নার্সিংহোমে এই ওষুধ প্রয়োগ করা হয়েছে। সন্ধ্যা পর্যন্ত তাকে নার্সিংহোমেই পর্যবেক্ষণে রাখা হয়।ওই শিশুর বাবা যোগেশ গুপ্তা হিন্দুস্তান টাইমসকে জানিয়েছেন, 'সাধারণ জ্বর ছাড়া অন্য কোনও সমস্যা ছেলের নেই। আপাতত সব ঠিক আছে। ওই শিশুর বাবা জানিয়েছেন, ওষুধটি একধরণের জিন থেরাপি। সিঙ্গল ডোজের ওই ইঞ্জেকশনটি তাকে দেওয়া হয়েছে। কোষে কোষে এই ওষুধ তার রোগের বিরুদ্ধে পালটা প্রতিরোধ গড়ে তুলবে। দুটি হাতের শিরায় তাকে ৬০ এমএল ওষুধ দেওয়া হয়েছে। ইঞ্জেকশনের ছুঁচ ফোটানোর জন্য যে ব্যাথা হয় সেটুকু ছাড়া অন্য কোনও অসুবিধা নেই।' তবে চিকিৎসকরা আগামী দু মাস ধরে তাকে পর্যবেক্ষণে রাখতে বলেছে। সেকারণে তার বাবা জানিয়েছেন, ‘ছেলের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যথেষ্ট দুর্বল। সেকারণে অন্য সংক্রমণ তার হতে পারে। সেকারণে তার কাছাকাছি বাইরের কাউকে আসতে দেওয়া হচ্ছে না।’

 প্রসঙ্গত ৪ঠা ফেব্রুয়ারি ছেলের চিকিৎসার জন্য সহায়তা চেয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিল শিশুর মা। এরপর ২৩শে মের মধ্যে ১৬ কোটি জোগাড় হয়। বিরাট কোহলি, অনুষ্কা শর্মা, দিয়া মির্জার মতো সেলিব্রিটিরা তার সহায়তায় এগিয়ে আসে। 

 

বন্ধ করুন