কঠিন সময়ে দেশের ক্রিকেটমহলের পাশে দাঁড়াল ইংল্যান্ড বোর্ড। ছবি- টুইটার।
কঠিন সময়ে দেশের ক্রিকেটমহলের পাশে দাঁড়াল ইংল্যান্ড বোর্ড। ছবি- টুইটার।

Civid-19: প্রয়োজনের সময়ে ক্রিকেটারদের বেতনে হাত নয়, উলটে সহায়তা প্যাকেজ ECB-র

  • বিশাল অঙ্কের আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা করে মহামারীর সময় দেশের ক্রিকেট পরিবারগুলির পাশে দাঁড়াতে বদ্ধপরিকর ইংল্যান্ড বোর্ড।

করোনা ভাইরাসের জেরে খেলাধুলো বন্ধ থাকায় আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছে প্রায় সব ক্রীড়া সংস্থাই। ইউরোপীয়ান ফুটবল জায়ান্ট হিসেবে পরিচিত ক্লাবগুলি ইতিমধ্যেই খেলোয়াড়দের বেতন কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

একই অবস্থা জাতীয় ক্রিকেট সংস্থাগুলির। আর্থিক ক্ষতি সামাল দিতে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেট বোর্ড খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকে কাঁচি চালাতে পারে বলে খবর। শোনা যাচ্ছে আইপিএল বাতিল হলে বিসিসিআইও একই রাস্তায় হাঁটতে পারে। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ড ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে যে, তারা এখনই ক্রিকেটারদের বেতন কমাতে রাজি নয়।

কার্যত একই মানসিকতা পোষণ করতে দেখা গেল ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডকে। ইসিবি আপাতত ক্রিকেটারদের বেতন কমানো নিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি। উলটে তারা বিশাল অঙ্কের সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা করে মহামারীর সময় দেশের ক্রিকেট পরিবারগুলির পাশে দাঁড়াতে বদ্ধপরিকর। ইংল্যান্ড বোর্ডের ধারণা, ক্রিকেটারদের বেতনে হাত দেওয়ার সময় এটা নয়। বরং প্রয়োজনের সময় তাঁদের হাতে অর্থ যোগান দেওয়া দরকার।

ইসিবি স্থানীয় ক্লাবস্তর থেকে ফার্স্ট ক্লাস কাউন্টি পর্যন্ত এমনকি কাউন্টি বোর্ডকেও তড়িঘড়ি আর্থিক সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। চলতি মরশুমের যাবতীয় পাওনা অগ্রিম মিটিয়ে দেওয়া ছাড়াও কোনও কোনও ক্ষেত্রে ঋণ অথবা অনুদান হিসেবেও টাকা দিচ্ছে ইংল্যান্ড বোর্ড।

সব মিলিয়ে মোট ৬১ মিলিয়ন পাউন্ডের প্যাকেজ ঘোষণা করেছে ইসিবি। যার মধ্যে ৪০ মিলিয়ন পাউন্ড ফার্স্ট ক্লাস কাউন্টি ক্লবগুলি ও কাউন্টি বোর্ডের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হবে।

ইসিবি'র চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার টম হ্যারিসন জানান, 'বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে আমরা সবাই অবগত। এমন সংকটের মুহূর্তে ক্রিকেট পরিবারের পাশে দাঁড়ানো আমাদের কর্তব্য। ইংল্যান্ডের সর্ব স্তরের ক্রিকেট পরিবারগুলির হাতে প্রয়োজনের সময় অর্থ যোগান দেওয়াই এই মুহূর্তে আমাদের প্রাথমিক কর্তব্য বলে মনে হয়েছে।'

বন্ধ করুন