বাংলা নিউজ > ময়দান > বাংলা ক্রিকেটে জালিয়াতি রুখতে ডালমিয়া-গাঙ্গুলির হুঁশিয়ারি
অভিষেক ডালমিয়া ও স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায় (ছবি: সিএবি)
অভিষেক ডালমিয়া ও স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায় (ছবি: সিএবি)

বাংলা ক্রিকেটে জালিয়াতি রুখতে ডালমিয়া-গাঙ্গুলির হুঁশিয়ারি

  • অভিষেক ডালমিয়া ও স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায় জুটি বাংলার ক্রিকেটকে স্বচ্ছ করতে নতুন এক সংস্থার সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। যাদের মাধ্যমে সিএবি-তে নথিভুক্ত ক্রিকেটারদের তথ্য যাচাই হবে।

অতীতে বহুবার ক্রিকেটারদের বয়স বাড়ানো থেকে ভিন্ন জেলার ক্রিকেটারকে বেআইনি ভাবে দলে নেওয়ার বহু অভিযোগ উঠেছিল। বারবার প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছিল ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গলকে। বারবার চেষ্টা করেও এই সব বেআইনি কার্যকলাপ বন্ধ করতে পারেনি সিএবি। বাংলার ক্রিকেটে অনৈতিক, দুর্নীতিমূলক কাজ রুখতে বদ্ধপরিকর সিএবি। 

তবে এবার একেবারে উল্টো পথে হাঁটতে চলেছে অভিষেক ডালমিয়া ও স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায় জুটি। তারা বাংলার ক্রিকেটকে স্বচ্ছ করতে নতুন এক সংস্থার সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। যাদের মাধ্যমে সিএবি-তে নথিভুক্ত ক্রিকেটারদের তথ্য যাচাই হবে। কোনও ভুল ত্রুটি পাওয়া গেলেই শাস্তির মুখে পড়তে হবে সেই ক্রিকেটারকে।

বেঙ্গল ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অভিষেক ডালমিয়া এক সরকারি বিবৃতিতে বলেছেন, ‘লকডাউনের এই সময়টাকে আমরা কাজে লাগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ইতিমধ্যেই আমরা আমাদের কাছে জমা হওয়া প্রথম ও দ্বিতীয় ডিভিশনের দলগুলোর সব নথিপত্র যাচাই করার কাজ শুরু করেছি। আমরা নথিপত্র যাচাই করার পুরো প্রক্রিয়াটি সঠিক সময়ের মধ্যে সম্পূর্ণ করতে বদ্ধপরিকর।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘একবার যাচাই শেষ হলে কোনও জালিয়াতি করার ঘটনা উঠে এলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভবিষ্যতে যাতে আর জালিয়াতি না হয় তার জন্য অভিযুক্তের প্রতি নীতি প্রয়োগ করা হবে।’

সিএবি সচিব স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায় এ ব্যাপারে বলেছেন, ‘আমাদের কাছে যে নথিগুলি জমা দেওয়া হয়েছে তার মধ্যে কিছু জাল তথ্য থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে একটি সংস্থার সাহায্য নিয়ে নথি যাচাইয়ের কাজ করা হচ্ছে। সিএবির তথ্যভান্ডারে যদি কোনও জালিয়াতির ঘটনা থাকে তাহলে সহজেই সেটি খুঁজে বের করা যাবে। যা আগামী মরসুমকে স্বচ্ছ করবে।’

বন্ধ করুন