বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs ENG: টেস্ট প্রত্যাবর্তনের আগে ভারতীয় বোলিং আক্রমণকে প্রশংসায় ভরালেন ডেভিড মালান
অনুশীলনে জো রুটের সঙ্গে আলোচনায় মত্ত মালান। ছবি- রয়টার্স।  (Action Images via Reuters)
অনুশীলনে জো রুটের সঙ্গে আলোচনায় মত্ত মালান। ছবি- রয়টার্স।  (Action Images via Reuters)

IND vs ENG: টেস্ট প্রত্যাবর্তনের আগে ভারতীয় বোলিং আক্রমণকে প্রশংসায় ভরালেন ডেভিড মালান

  • ২০১৮ সালে বার্মিংহ্যামেই ভারতের বিরুদ্ধে শেষবার লাল বলের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছিলেন মালান।

আর কিছুক্ষণের মধ্যেই ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে হেডিংলেতে তৃতীয় টেস্ট খেলতে নেমে পড়বে ভারতীয় দল। লর্ডসে পর্যদুস্ত হওয়ার পর ইংল্যান্ড দলে বেশ কিছু পরিবর্তনের সম্ভাবনা রয়েছে। প্রবল সমালোচনার পর বিশেষত, ইংলিশ টপ অর্ডারে এই টেস্টে যে পরিবর্তন হবেই তা একপ্রকার নিশ্চিত।

তিন বছর পর পুনরায় ইংল্যান্ডের টেস্ট দলে সুযোগ পেয়েছেন ডেভিড মালান। ২০১৮ সালে শেষবার কোহলি বাহিনীর বিরুদ্ধেই বার্মিংহ্যামে লাল বলের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছিলেন এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। বুধবার (২৫ অগস্ট) ইংল্যান্ডের প্রথম একাদশে তাঁকে দেখতে পাওয়ার সম্ভবনা প্রবল। তবে টেস্ট প্রত্যাবর্তন ঘটানোর আগে ভারতীয় দল ও ভারতের বোলিং আক্রমণকে বেশ সমীহই করছেন মালান।

হেডিংলেতে নামার আগে সাংবাদিক সম্মেলনে মালান বলেন, ‘আমার মতে বিরাট (কোহলি) ভারতকে খুবই ভালভাবে নেতৃত্ব দিচ্ছে এবং ও যে ভাবে ক্রিকেটটা খেলে, তাতে বাকিদের ওপরও ওর প্রভাব চোখে পড়ার মতো। নিজের আগ্রাসী মনোভাবের আদলেই ও গোটা দলটাকে গড়ে তুলেছে। ওদের (ভারতীয় দলের) ব্যাটিংয়ের পাশপাশি বোলিংয়েও গভীরতা চোখে পড়ার মতো এবং ওদের বোলাররা যে কোন পরিবেশে টেস্ট ম্যাচ জেতাতে সক্ষম। ওদের দলের গভীরতা দারুণ এবং ওরা প্রবল প্রতিপক্ষ।’

এখনও পর্যন্ত লাল বলের ক্রিকেটে ১৫টি ম্যাচ খেলে মালানের মোট সংগ্রহ ৭২৪ রান। স্পষ্টতই সাদা বলের ক্রিকেটে দারুণ সফল হলেও লাল বলে এখনও সেই ফর্ম দেখাতে পারেননি ইংলিশ টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। টেস্ট ক্রিকেট সীমিত ওভারের ক্রিকেট থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন মেনে নিলেও মালান জানান তিনি নিজের ব্যাটিংয়ে খুব বেশি পরিবর্তন করার চেষ্টা করেন না।

 ‘আমি যে ফর্ম্যাটে যে জায়গায়ই ব্যাট করি না কেন, একই পদ্ধতিতে খেলার চেষ্টা করি। আমি বল দেখে দেরিতে ডিফেন্ড করি, বাইরের বল ছাড়ি এবং খারাপ বলে রানার লক্ষ্যেই থাকি (টেস্ট ক্রিকেটে)। আমার মনে হয়না এক্ষেত্রে খুব বেশি কিছু পরিবর্তন করতে হয় বলে।’ মত মালানের। হেডিংলেতে ইংল্যান্ডের টপ অর্ডার সমস্যার সমাধান মালান করতে পারেন কিনা, এখন সেটাই দেখার অপেক্ষা। 

বন্ধ করুন