বাড়ি > ময়দান > নাদালের ইনস্টাগ্রাম লাইভে ফেডেরার শুনলেন, প্রযুক্তির কোর্টে আমরা নিতান্ত বুড়ো
লাইভ চ্যাটে নাদাল ও ফেডেরার। ছবি- ইনস্টাগ্রাম।
লাইভ চ্যাটে নাদাল ও ফেডেরার। ছবি- ইনস্টাগ্রাম।

নাদালের ইনস্টাগ্রাম লাইভে ফেডেরার শুনলেন, প্রযুক্তির কোর্টে আমরা নিতান্ত বুড়ো

  • রাফায়েল নাদাল এই প্রথমবার ইনস্টাগ্রাম লাইভে আসেন। ফেডেরারকে লাইভ চ্যাটে আমন্ত্রণ জানাতেই হিমশিম খান তিনি।

বয়সকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে এখনও টেনিস কোর্ট মাতিয়ে চলেছেন। তবে ল্যাপটপে সহজ প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে নিজেকে নিতান্ত বুড়ো বলে মনে করছেন রাফায়েল নাদাল। বাস্তবিকই ১৯টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী স্প্যানিশ কিংবদন্তি জীবনে প্রথমবার ইনস্টাগ্রাম লাইভে এসে যে ভাবে বিব্রত হলেন, প্রতিপক্ষের বিষাক্ত সব সার্ভিস রিটার্ন করেন এর থেকে অনেক সহজে।

লকডাউনে মালোরকায় নিজের বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন নাদাল। ব়্যাকেট হাতে নেননি দীর্ঘ সময়। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নিজের ভূমিকা যথাযথ পালন করার চেষ্টা করেছেন তিনি। অবশেষে স্থির করেন সোশ্যাল মিডিয়ায় অনুরাগীদের সঙ্গে মুখোমুখি সময় কাটাবেন কিছুক্ষণ। তবে ভাবেননি তাঁর অনুরাগীদের মাঝে ভিড় জমাবেন রজার ফেডেরার, অ্যান্ডি মারে, স্তান ওয়ারিঙ্কার মতো তারকারা। এমনকি রিয়াল মাদ্রিদের ভিনিসিয়াসও রাফার ইনস্টাগ্রাম লাইভে যোগ দেন।

যেহেতু ইনস্টাগ্রাম লাইভে নিতান্ত অনভিজ্ঞ নাদাল, তাই তাঁকে সমস্যায় পড়তে হয় ফেডেরার, মারেদের মতো দীর্ঘদিনের বন্ধুদের লাইভ চ্যাটে আমন্ত্রণ জানাতে। অনুরাগীরাই রাফাকে অনুরোধ করেন ফেডেরারকে লাইভ চ্যাটে যোগ করার। সেই মতো বহু প্রচেষ্টার পর নাদাল সক্ষম হন রজারকে ভিডিও চ্যাটে যোগ করতে। মাঝে বেশ কয়েকবার ব্যর্থ হয় তাঁর প্রচেষ্টা।

সব দেখেশুনে অ্যান্ডি মারে বলে বসেন, নাদাল ৫২বার ফরাসি ওপেন জিততে পারেন, তবে ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করতে পারেন না। শেষমেশ যখন রজারের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করতে সক্ষম হন রাফা, তখন ফেডেরারের মধ্যে রীতিমতো গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের উচ্ছ্বাস দেখা যায়।

রজার বলেন, 'আমরা কি পেরেছি? আমি বার বার লাইভে ঢুকছিলাম আর বেরোচ্ছিলাম। জানি না কতবার এমন হয়েছে। হে ঈশ্বর, অবশেষে আমরা সফল হয়েছি।'

নাদালকে বলতে শোনা যায়, 'তোমরা দেখতেই পাচ্ছ আমি সবকিছুতেই বিপর্যয় ডেকে আনি। তবে আমি চেষ্টায় কসুর করি না। আমরা বোধহয় এগুলো করার জন্য একটু বেশিই বুড়ো হয়ে গিয়েছি।' রাফা মারেকে জানান যে, পরের বার তিনি আরও প্রস্তুত হয়ে ইনস্টাগ্রাম লাইভে আসবেন।

যোগাযোগ স্থাপনের পর অবশ্য তিন তারকার মধ্যে খেলা ও বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়। একে অপরের কুশল সংবাদ নেন। নাদাল জানান, ইন্ডিয়ান ওয়েলসের সময় থেকে তিনি আর ব়্যাকেট হাতে নেননি। ফেডেরার বলেন, 'দারুণ বিষয়। ফিরে আসার পর তুমি আর খেলার অবস্থায় থাকবে না।'

রজার তাঁর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীকে জিজ্ঞাসা করেন, অনেক কাজ ডান হাতে করলেও তিনি কেন বাঁ-হাতে টেনিস খেলেন। বাঁ-হাতে খেলার জন্য ফেডেরারের তাঁকে সামলাতে সমস্যায় পড়তে হয়। উত্তরে নাদাল জানান, 'তিনি বাস্কেটবল খেলেন ডান হাতে। তবে টেনিস শুরু করেছিলেন দু'হাতে। পরে যখন এক হাতে খেলার প্রয়োজন হয়, বাঁ-হাতটাই আগে চলে আসে।'

বন্ধ করুন