বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > কালী আরাধনায় মেলে ভয়, কষ্ট, রোগ থেকে মুক্তি
চারটি রূপে কালী পূজিত হন— দক্ষিণা কালী, শ্মশান কালী, মাতৃ কালী ও মহাকালী।
চারটি রূপে কালী পূজিত হন— দক্ষিণা কালী, শ্মশান কালী, মাতৃ কালী ও মহাকালী।

কালী আরাধনায় মেলে ভয়, কষ্ট, রোগ থেকে মুক্তি

  • দুর্গার ১০ মহাবিদ্যার মধ্যে অন্যতম হলেন কালী। ধর্ম রক্ষা ও অসুরদের সংহারের জন্য কালীর আগমন হয়।

১৪ নভেম্বর আগামী শনিবার অমাবস্যার রাতে কালী পুজো। দুর্গার ১০ মহাবিদ্যার মধ্যে অন্যতম হলেন কালী। কালীর অর্থ সময় অথবা কাল। ধর্ম রক্ষা ও অসুরদের সংহারের জন্য কালীর আগমন হয়। কলিযুগে তিন জন দেব-দেবীকে জাগ্রত মনে করা হয়, হনুমান, কালিকা ও ভৈরব। চারটি রূপে কালী পূজিত হন— দক্ষিণা কালী, শ্মশান কালী, মাতৃ কালী ও মহাকালী। কালীর আরাধনা করলে জীবনে সুখ, শান্তি, শক্তি, বিদ্যা লাভ করা যায়। মা কালীর আরাধনা করলে—

  • দীর্ঘকালীন রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  • মনে করা এমন কোনও রোগ, যার চিকিৎসা সম্ভব নয়, তা-ও কালীর উপাসনা করলে দূর হয়।
  • কালীর পুজো করলে, কালো যাদু ও তন্ত্রের প্রভাব পড়ে না।
  • অশুভ আত্মার হাত থেকে কালী তাঁর ভক্তদের রক্ষা করেন।
  • কালীকে প্রসন্ন করতে পারলে ঋণ মুক্তি সম্ভব।
  • এমনকি ব্যবসায়ে আগত সমস্যাও দূর হয়।
  • জীবনসঙ্গী বা নিকট আত্মীয়ের সঙ্গে মনোমালিন্য দূর করেন কালী।
  • কালীর উপাসনা করলে বেকারত্ব, কেরিয়ার ও শিক্ষা ক্ষেত্রে অসাফল্যের হাত থেকে মুক্তি সম্ভব।
  • ব্যবসায় লাভ ও চাকরিতে পদোন্নতি সম্ভব।
  • শনি-রাহুর মহাদশা বা অন্তরদশা, শনির সাড়েসাতি, শনির আড়াইয়ের দশা এ সব থেকেই কালী রক্ষা করেন।
  • এমনকি পিতৃদোষ ও কালসর্প দোষের মতো সমস্যা থেকেও কালী মুক্তি দিতে পারেন।
  • কালীর আরাধনা করলে, কষ্ট, ভয় দূর হয়। আবার ধন, বৈভব বৃদ্ধি পায়। পারিবারিক ও মানসিক শান্তিও কালীর আরাধনার ফলে লাভ করা যায়।

বন্ধ করুন