বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > East Burdwan: তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত গলসি, ভাঙচুর করা হল পার্টি অফিস, আহত ১
হাসপাতালে আহত যুবক। নিজস্ব ছবি

East Burdwan: তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত গলসি, ভাঙচুর করা হল পার্টি অফিস, আহত ১

  • তিনি আরও বলেন, ওই ছেলেটির বাবা ইলিয়াস মোল্লা তৃণমূল করেন বলেই তার ওপর হামলা চালানো হয়েছে। এটা সম্পূর্ণ তৃণমূলের গোষ্ঠীদন্দ্ব বলে জানান তিনি । এই ঘটনায় কাদের আলি মোল্লা, মিন্টু সাহা, সুশান্ত বাগদী-সহ বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে এই মারধরের অভিযোগ এনেছেন তিনি।

একুশে জুলাই এর প্রস্তুতিকে ঘিরে রাজ্য জুড়ে ব্যস্ত তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাকর্মীরা। তারই মধ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হয়ে উঠল পূর্ব বর্ধমান জেলার গলসি ১নম্বর ব্লকের পারাজ পঞ্চায়েত এলাকা। ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। তার মধ্যে একজনের বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। এছাড়াও, তৃণমূলের পার্টি অফিস ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। গোটা ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনি পৌঁছয়।

শেখ আলমগীর নামে এক তৃণমূল কর্মী জানান, ‘আমরা বাজারে চা খাচ্ছিলাম সে সময় আমরা দেখি পার্টি অফিসের কাছ দিয়ে বাড়ি ফিরছিল ১৭ বছরের যুবক রিয়াজ মল্লিক। সেই অবস্থায় কয়েকজন তৃণমূল কর্মী লাঠি সোটা নিয়ে বেরিয়ে আসে। এরপরে তার ওপর হামলা চালায়।’ তিনি আরও বলেন, ওই ছেলেটির বাবা ইলিয়াস মোল্লা তৃণমূল করেন বলেই তার ওপর হামলা চালানো হয়েছে। এটা সম্পূর্ণ তৃণমূলের গোষ্ঠীদন্দ্ব বলে জানান তিনি । এই ঘটনায় কাদের আলি মোল্লা, মিন্টু সাহা, সুশান্ত বাগদী-সহ বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে এই মারধরের অভিযোগ এনেছেন তিনি। তার অভিযোগ, এর আগেও তারা এই ধরনের ঘটিয়েছে। বছর খানেক আগে এক ব্যক্তির পা ভেঙে দিয়েছিল এরা।

যদিও গোষ্ঠীর দ্বন্দ্বের কথা অস্বীকার করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বে দাবি, একুশে জুলাই নিয়ে তৃণমূল কর্মীরা বাড়ি বাড়ি প্রচারে বেরিয়েছিলেন। সেই সময় কয়েকজন দুষ্কৃতী তাদের উপর হামলা চালায়। আক্রান্তরা পার্টি অফিসে আশ্রয় নিলে পার্টি অফিসে ভাঙচুর করা হয়। যারা ভাঙচুর করেছে বা মারধর করেছে তারা কোনওভাবেই তৃণমূলের কর্মী নয়। এটা রাজনৈতিক রং দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন