বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আর মাত্র সপ্তাহখানেকের অপেক্ষা, পশ্চিমবঙ্গবাসীর পাতে পড়তে চলেছে পদ্মার নধর ইলিশ
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

আর মাত্র সপ্তাহখানেকের অপেক্ষা, পশ্চিমবঙ্গবাসীর পাতে পড়তে চলেছে পদ্মার নধর ইলিশ

  • অন্যান্য বছরের তুলনায় বাংলাদেশে এবার প্রচুর ইলিশ ধরা পড়েছে। পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা কোনও নদীই নিরাশ করেনি। বাংলাদেশের বাজারে এবার ইলিশের দামও খুব কম।

প্রায় ৮ বছর পর বরফ গলল। অবশেষে রাজ্যে ঢুকছে পদ্মার ইলিশ। ২০১২ সালে ভারতে ইলিশ রপ্তানি নিষিদ্ধ করে বাংলাদেশ। মাঝে অনেক চেষ্টা করেও লাভ হয়নি। তবে আগামী সপ্তাহে কলকাতায় আসতে চলেছে ১৪৫০ টন বাংলাদেশি ইলিশ। ব্যবসায়ীদের লাগাতার আবেদনের ভিত্তিতে ইলিশ রপ্তানির বিশেষ অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। স্বভাবতই এ খবরে খুশি বাঙালি খাদ্যরসিকরা।

লকডাউনের জেরে নদীপথ পরিষ্কার থাকায় এবং বেশ ভাল পরিমাণ বৃষ্টিপাত দেখে পশ্চিমবঙ্গে এবার বেশ ভাল পরিমাণ নধর ইলিশ ধরা পড়বে বলে অনুমান করেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু সে গুড়ে বালি। সেরকম ইলিশ এবার ওঠেইনি নদী থেকে। বাজারেও যা পাওয়া যাচ্ছে তার অনেক দাম। কিন্তু এবার পদ্মার ইলিশে পাত পড়বে শুনে চাহিদা মিটবে অনেকেরই।

জানা গিয়েছে, অন্যান্য বছরের তুলনায় বাংলাদেশে এবার প্রচুর ইলিশ ধরা পড়েছে। পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা কোনও নদীই নিরাশ করেনি। বাংলাদেশের বাজারে এবার ইলিশের দামও খুব কম। ৮০০ থেকে ১২০০ টাকার মধ্যে এক কেজি ওজনের ইলিশ বিকোচ্ছে। এর কম ওজনের ইলিশের দাম ৬০০ টাকার আশপাশে ঘোরাফেরা করছে। জানা গিয়েছে, আরও ভাল দাম পাওয়ার আশায় রপ্তানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। ইলিশ রপ্তানি করতে অনুমতি পয়েছে বাংলাদেশের ৯ রপ্তানিকারক। আগামী সপ্তাহের মধ্যেই যা বেনাপোল–হরিদাসপুর সীমান্ত দিয়ে পশ্চিমবঙ্গে পৌঁছে যাবে। তবে এখানে কীরকম দামে তা বিকোবে তা সময়ই বলবে।

বন্ধ করুন