বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > তদন্তে অসহযোগিতার ফল, বীরভূমে ২ বিস্ফোরণে NIA তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের
সদাইপুরে বিস্ফোরণে উড়ে গিয়েছে তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধানের বাড়ির চাল।

তদন্তে অসহযোগিতার ফল, বীরভূমে ২ বিস্ফোরণে NIA তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের

  • NIA-র অভিযোগ, এই তদন্তে তাদের সাহায্য করতে অস্বীকার করে রাজ্য পুলিশ। তথ্যপ্রমাণ থেকে নথি কোনও কিছুই তাদের হাতে তুলে দেয়নি রাজ্য পুলিশ। এর ফলে NIA আদালতের দ্বারস্থ হন কেন্দ্রীয় তদন্তকারীরা।

বিস্ফোরণকাণ্ডের তদন্তে এনআইএকে সাহায্য না করায় বড় খেসারত দিতে হল রাজ্য পুলিশকে। বীরভূমের ২টি বিস্ফোরণকাণ্ডের তদন্তভার জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা NIA-র হাতে তুলে দিল কলকাতা হাইকোর্ট। ২০১৯ সালের এই ২ বিস্ফোরণের ঘটনায় NIA-এ তদন্ত রিপোর্ট দেয়নি রাজ্য পুলিশ। যার জেরে ঘটনা দুটির NIA তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ।

২০১৯ সালের ২৯ অগাস্ট বীরভূমের সদাইপুর থানা এলাকার রেঙুনি গ্রামে তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান হাইতুন্নেসা খাতুনের বাড়িতে বিস্ফোরণে গোয়ালের চাল উড়ে যায়। ওই বছরই সেপ্টেম্বরে লোকপুর থানা এলাকার গাংপুরে বাবলু মণ্ডল নামে এক ব্যক্তির বাড়ির টিনের চাল উড়ে যায়। স্বতঃপ্রণোদিতভাবে এই ২ ঘটনার তদন্ত শুরু করে NIA. সঙ্গে তদন্ত চালায় রাজ্য পুলিশও।

NIA-র অভিযোগ, এই তদন্তে তাদের সাহায্য করতে অস্বীকার করে রাজ্য পুলিশ। তথ্যপ্রমাণ থেকে নথি কোনও কিছুই তাদের হাতে তুলে দেয়নি রাজ্য পুলিশ। এর ফলে NIA আদালতের দ্বারস্থ হন কেন্দ্রীয় তদন্তকারীরা। সেই মামলার রায়ে বৃহস্পতিবার বিচারপতি বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ এই ২ ঘটনায় NIA তদন্তের নির্দেশ দেন। সঙ্গে রাজ্য পুলিশকে তদন্তে সম্পূর্ণ সহযোগিতার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

সম্প্রতি রাজ্যের একাধিক ঘটনায় কেন্দ্রীয় সংস্থাকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি ও হাঁসখালি ধর্ষণকাণ্ডে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। যাতে প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি রাজ্য পুলিশের ওপর ভরসা রাখতে পারছে না আদালত? এবার বিস্ফোরণকাণ্ডে NIA তদন্তের নির্দেশ সেই প্রশ্নকেই আরেকবার জোরদারভাবে তুলে দিল।

 

বন্ধ করুন