বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিনিয়োগে উৎসাহ দেখাচ্ছেন না শিল্পপতিরা, জমির দাম কমানোর সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের

বিনিয়োগে উৎসাহ দেখাচ্ছেন না শিল্পপতিরা, জমির দাম কমানোর সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের

প্রতীকী ছবি

সরকারের তরফে জমির দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মন্ত্রী জানিয়েছেন, আলোচনা করে বাজারদরের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে জমির দাম ঠিক করা হবে।

ঢাক ঢোল পিটিয়ে শিল্পনগরী তৈরির জন্য জমি লিজ দেওয়ার ঘোষণা করেও সাড়া পাওয়া যায়নি, মুখ বাঁচাতে এবার তাই জমির দাম কমানোর পথে হাঁটতে চলেছে রাজ্য সরকার। একথা স্বীকার করে নিয়েছেন রাজ্যের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা। তবে জমির দাম কতটা কমানো হবে তা জানানো হয়নি।

গত বছর অগাস্টে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, রাজ্যের শিল্পায়নের স্বার্থে শিল্পনগরী গড়তে শিল্পপতিদের ৯৯ বছরের লিজে জমি দেবে রাজ্য সরকার। তবে ন্যূনতম ৫ একর জমি নিতে হবে তাদের। জমি বণ্টনের ৩০ দিনের মধ্যে দামের ১০ শতাংশ মিটিয়ে দিতে হবে। তার পর গোটা বছর পার হলে গেলেও তেমন কোনও সরকারের প্রস্তাবে তেমন কোনও উৎসাহ দেখাননি শিল্পপতিরা। এর জেরে ময়নাতদন্তে নামে রাজ্য সরকার। সরকারকে শিল্পপতিরা জানান, রাজ্য সরকার নির্ধারিত জমির দর বাজার থেকে অনেকটা বেশি। জমির মালিকদের থেকে সরাসরি জমি কিনলে তারা লাভবান হচ্ছেন। তাই সরকারি প্রকল্পে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না কেউ।

একথা জেনে সরকারের তরফে জমির দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মন্ত্রী জানিয়েছেন, আলোচনা করে বাজারদরের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে জমির দাম ঠিক করা হবে।

শিল্পায়নে নেমে ফের ধাক্কা খাওয়ায় রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করেছেন বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, ‘যে রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা বলে কোনও বস্তু নেই সেখানে শিল্পপতিরা আসবেন না। একথা তো তাঁরা রাজ্য সরকারকে সরাসরি বলতে পারছেন না। তাই জমির দামকে অজুহাত হিসাবে খাড়া করেছেন। এরাজ্যে বিচারব্যবস্থাও ছাড় পাচ্ছে না। রাজ্য সরকার যে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক করেছিল সেখানে ছাগল চরে বেড়াচ্ছে।’

বন্ধ করুন