বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘স্তম্ভিত’, মিশনারিজ অফ চ্যারিটির অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করায় কেন্দ্রকে তোপ মমতার
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় : কেন্দ্র যেভাবে সরকারি সংস্থাগুলির ঐতিহ্যকে ধ্বংস করতে নেমেছে, তাতে আমি আশ্চর্য ও শঙ্কিত। নিরাপত্তা অনুভূতির শেষ এটা। সঙ্গে কি যুগাবসানও? (ছবি সৌজন্য এএনআই)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় : কেন্দ্র যেভাবে সরকারি সংস্থাগুলির ঐতিহ্যকে ধ্বংস করতে নেমেছে, তাতে আমি আশ্চর্য ও শঙ্কিত। নিরাপত্তা অনুভূতির শেষ এটা। সঙ্গে কি যুগাবসানও? (ছবি সৌজন্য এএনআই)

‘স্তম্ভিত’, মিশনারিজ অফ চ্যারিটির অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করায় কেন্দ্রকে তোপ মমতার

  • টুইট করে মমতা জানান, এই ঘটনায় তিনি স্তম্ভিত। ঘটনা প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর মত, আইন রক্ষার নামে মানবিকতাকে বিসর্জন দিলে চলবে না৷

মিশনারিজ অফ চ্যারিটির বিরুদ্ধে জোর করে ধর্মান্তরণের অভিযোগ উঠেছিল গুজরাতে। আর তারপরই মিশনারিজ অফ চ্যারিটির সমস্ত ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট করার নির্দেশ দেয় কেন্দ্রীয় সরকার। আর এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইট করে মমতা জানান, এই ঘটনায় তিনি স্তম্ভিত। ঘটনা প্রসঙ্গে মমতার মত, আইন রক্ষার নামে মানবিকতাকে বিসর্জন দিলে চলবে না৷

এক টুইট বার্তায় মমতা লেখেন, ‘ক্রিসমাসে এই খবর শুনে আমি স্তম্ভিত যে, কেন্দ্রীয় সরকার ভারতে মাদার তেরেসার মিশনারিজ অফ চ্যারিটির সমস্ত ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করেছে! তাদের ২২ হাজার রোগী ও কর্মচারী খাবার ও ওষুধ ছাড়াই পড়ে আছে। যদিও আইন সর্বাগ্রে, মানবিক প্রচেষ্টার সাথে আপস করা উচিত নয়।’ উল্লেখ্য, মিশনারিজ অফ চ্যারিটির বিভিন্ন কেন্দ্রে প্রায় ২২ হাজার আবাসিক থাকেন। তাঁদের চিকিৎসা ও ভরনপোষণ সম্পূর্ণভাবে নির্ভরশীল সংস্থার ওপর।  কেন্দ্রের এই পদক্ষেপের জের সরাসরি তাদের উপর পড়বে।

উল্লেখ্য, প্রায় দুই সপ্তাহ আগে ভদোদরায় মিশনারিজ অফ চ্যারিটির শাখায় জোর করে হিন্দু তরুণীদের ধর্মান্তরণ ও হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত হানার অভিযোগ উঠেছিল। ঘটনায় তদন্ত শুরু করে গুজরাত পুলিশ। এর সঙ্গে সেই ঘটনার কোনও সম্পর্ক আছে কিনা, তা স্পষ্ট নয় এখনও। কেন মিশনারিজ অফ চ্যারিটির ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট কেন ফ্রিজ হয়েছে তা জানায়নি কেন্দ্র। এব্যাপারে প্রতিষ্ঠানের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। 

 

 

বন্ধ করুন