বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > টার্গেট ২০২১:‌ এই প্রথম সারা রাজ্য বুথ কমিটি গড়ছে তৃণমূল
আগামী বিধানসভা নির্বাচনের জন্য এই প্রথম রাজ্যজুড়ে বুথ কমিটি তৈরি করছে তৃণমূল।
আগামী বিধানসভা নির্বাচনের জন্য এই প্রথম রাজ্যজুড়ে বুথ কমিটি তৈরি করছে তৃণমূল।

টার্গেট ২০২১:‌ এই প্রথম সারা রাজ্য বুথ কমিটি গড়ছে তৃণমূল

  • সর্বনিম্ন ৩ জন থেকে সর্বাধিক ১৫ জন সদস্য থাকবেন কমিটিতে।

২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে সাংগঠনিক জোর বাড়াতে শুরু করেছে রাজনৈতিক দলগুলি। এই প্রথম রাজ্যজুড়ে বুথ কমিটি তৈরি করছে তৃণমূল। 

জানা গিয়েছে, সর্বনিম্ন ৩ জন থেকে সর্বাধিক ১৫ জন সদস্য থাকবেন কমিটিতে। প্রতিটি ওয়ার্ডে দলের সভাপতি রয়েছেন। এবার তাই ওয়ার্ড কমিটিগুলিও নতুন করে সাজানো হবে বলে দলীয় সূত্রে খবর। পাশাপাশি নতুন কমিটি তৈরি করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জেলা সভাপতিদেরও।

২০১৬ সালের নির্বাচনে তৃণমূলের হয়ে বেহালা পূর্বে জয়ী হন শোভন চট্টোপাধ্যায়। তাঁর সঙ্গে এখন বিজেপি–‌র সুসম্পর্ক। অন্য দিকে, যাদবপুর থেকে ২০১৬–র নির্বাচনে পরাজিত হন তৃণমূলের মণীশ গুপ্ত। তাই দলের বিশেষ নজরে রয়েছে বেহাল পূর্ব ও যাদবপুর— এই ২ আসনে। শুধু এই দুটি আসনই নয়, আসন্ন নির্বাচনে দক্ষিণ কলকাতা থেকে বিধানসভা নির্বাচনে জেতা সব ক’‌টিতেই জয় ধরে রাখতে চায় তৃণমূল।

মঙ্গলবার তৃণমূল রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সির অফিসে বিশেষ বৈঠকে হাজির হন সুব্রত মুখোপাধ্যায়, অরূপ বিশ্বাস, শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, মণীশ গুপ্ত, জাভেদ খান, আবদুল খালেক মোল্লা, দেবাশিস কুমার, বৈশ্বানর চট্টোপাধ্যায়রা। সেখানে সাংগঠনিক কাজে হোয়াট্‌সঅ্যাপ গ্রুপের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। 

সুব্রত বলেন, ‘‌হোয়াট্‌সঅ্যাপে সংগঠনের অনেক কাজ করা যায়। বুথ কমিটি গড়া ভাল উদ্যোগ।’‌ যাদবপুর ও টালিগঞ্জের সংগঠন সামলানোর দায়িত্ব দেওয়া হয় অরূপ বিশ্বাসকে। কসবা বিধানসভায় ২ কো–অর্ডিনেটর তাঁর সঙ্গে সহযোগিতা করছেন না বলে অভিযোগ করেন জাভেদ খান। এদিনের বৈঠকে অন্তর্দ্বন্দ্ব ভুলে বিজেপি–‌র বিরুদ্ধে একজোট হয়ে নামার বার্তাও দেন অনেকে।

বন্ধ করুন