বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > চিনা নিয়ন্ত্রণাধীন সংস্থাকে পশ্চিমবঙ্গে মদের হোম ডেলিভারির অনুমতি দিল নবান্ন
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

চিনা নিয়ন্ত্রণাধীন সংস্থাকে পশ্চিমবঙ্গে মদের হোম ডেলিভারির অনুমতি দিল নবান্ন

  • সংবাদসংস্থা রয়েটার্সের প্রতিবেদন অনুসারে, শুক্রবার নবান্ন থেকে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে নতুন বেশ কয়েকটি সংস্থাকে পশ্চিমবঙ্গে মদের হোম ডেলিভারির অনুমতি দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চিনা সেনার আগ্রাসনে ভারতের ২০ জন জওয়ান শহিদ হওয়ার পর দেশ জুড়ে চিন বিরোধিতার ঝড় উঠেছে। ইতিমধ্যে রাস্তায় নেমে চিনা পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছেন অনেকে। বিক্ষোভ দেখিয়েছে বিজেপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল। বিক্ষোভে সামিল হতে দেখা না গেলেও লাদাখে চিনা হামলার বিরোধিতা করেছে তৃণমূল। প্রধানমন্ত্রীর ডাকা সর্বদল বৈঠকে এই নিয়ে মমতা বলেন, এই পরিস্থিতিতে গোটা দেশকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বলতে, ভাবতে ও কাজ করতে হবে। ডোকলাম ও চিকেন নেকে চিনের নজর রয়েছে। চিনকে ভারতের বাজারে ঢুকতে দেওয়া যাবে না। যদিও চিনা নিয়ন্ত্রিত সংস্থাকে শুক্রবারই পশ্চিমবঙ্গে মদের হোম ডেলিভারির অনুমতি দিয়েছে নবান্ন। 

সংবাদসংস্থা রয়েটার্সের প্রতিবেদন অনুসারে, শুক্রবার নবান্ন থেকে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে নতুন বেশ কয়েকটি সংস্থাকে পশ্চিমবঙ্গে মদের হোম ডেলিভারির অনুমতি দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এর মধ্যে রয়েছে মার্কিন সংস্থা ‘আমাজন’। এছাড়া রয়েছে অনলাইন রিটেল স্টোর ‘বিগ বাস্কেট’। যে ‘বিগ বাস্কেট’-এ প্রধান বিনিয়োগকারী চিনা সংস্থা ‘আলিবাবা’। 

তথ্য অনুসন্ধান করে দেখা যাচ্ছে, ‘বিগ বাস্কেট’-এ রয়েছে একাধিক বহুজাতিক ও আর্থিক সংস্থার বিনিয়োগ। এদের মধ্যে সব থেকে বড় বিনিয়োগ রয়েছে ‘আলিবাবা’। কোম্পানিটির মোট বাজারমূল্য এখন প্রায় ১.৮ বিলিয়ন ডলার। 

গত মাস থেকেই পশ্চিমবঙ্গে মদের হোম ডেলিভারির অনুমতি দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই মর্মে নবান্নের সঙ্গে মউ স্বাক্ষরিত হয়েছে তাদের। সম্প্রতি মউ স্বাক্ষরিত হয়েছে আমাজন ও বিগ বাস্কেটের সঙ্গেও। তেমনই জানানো হয়েছে নবান্ন থেকে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতের অনলাইন রিটেল বাজারে আমাজনকে আটকাতে বিগ বাস্কেটে বিনিয়োগ করছে চিনা সংস্থা আলিবাবা। তাদের মূল লক্ষ্য ভারতের অনলাইন রিটেল বাজারে আধিপত্যকায়েম।

 

বন্ধ করুন