বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ > গ্রামের লড়াই > কেষ্টপুর মা–মেয়ের মৃত্যুতে গ্রেফতার পাঁচ, সুইসাইড নোটে রহস্যের পর্দাফাঁস

কেষ্টপুর মা–মেয়ের মৃত্যুতে গ্রেফতার পাঁচ, সুইসাইড নোটে রহস্যের পর্দাফাঁস

কেষ্টপুরের প্রফুল্ল কাননের আবাসন

সন্দেহ হওয়ায় উদ্বেগের সঙ্গে দ্রুত কেষ্টপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি। গৌতমবাবু নিরাপত্তারক্ষীকে ফোন করেন। তাঁর নির্দেশ পেয়ে ওই ফ্ল্যাটে গিয়ে দেখেন দু’‌জনের মৃতদেহ। খবর দেওয়া হয় বাগুইআটি থানায়। ততক্ষণে চলে আসেন গৌতমবাবুও।পুলিশ মা-মেয়ের মৃতদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠালে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

কেষ্টপুরে মা–মেয়ের মৃত্যুর ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করল বাগুইআটি থানার পুলিশ। তারপর তদন্তে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। গ্রেফতার হওয়া পাঁচজন ব্যক্তি বিধাননগর পুরসভায় মিউটেশন, লাইসেন্স, বিল্ডিং প্ল্যান পাস–সহ বিভিন্ন কাজে এজেন্ট হিসেবে কাজ করত। কেষ্টপুরের প্রফুল্ল কাননের আবাসনে এই জোড়া মৃতদেহ মেলায় আলোড়ন পড়ে গিয়েছিল। জোড়া মৃত্যুর কারণ নিয়ে তৈরি হয়েছে রহস্য। তবে মা গোপা রায় এবং মেয়ে সুদেষ্ণা রায়ের সুইসাইড নোট পুলিশ পেয়ে যাওয়ায় এই জোড়া মৃত্যু রহস্যের পর্দাফাঁস হয়ে যায়।

এদিকে এই জোড়া মৃত্যুর ঘটনায় পুলিশ বিধাননগর পুরসভার তিনকর্মী–সহ পাঁচজনকে প্রথমে ‘আটক’ করে। তারপর নানা কথা জিজ্ঞাসাবাদ করতেই অসংলগ্ন তথ্য দিতে শুরু করে তারা। তখন আবার ওই ফ্ল্যাটে যায় পুলিশ। আর সেখানে চিরুণি তল্লাশি শুরু করে। তখন ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি সুইসাইড নোট পায়। সেখানে এই পাঁচজনের নাম লেখা ছিল। মৃত গোপা রায় (৪৬) ও মেয়ে সুদেষ্ণা রায় (২৩) যে ফ্ল্যাটে থাকতেন সেটি দু’বছর আগে ভাড়া নিয়েছিলেন গোপাদেবীর ভাই গৌতম দে। প্রায় ১৪ বছর গোপাদেবী মেয়েকে নিয়ে ভাইয়ের এখানেই থাকতেন। কারণ স্বামীর সঙ্গে তাঁর বিচ্ছেদের মামলা চলছিল।

অন্যদিকে রবিবার গৌতমবাবু তারাপীঠ গিয়েছিলেন। সেখান থেকে বারবার দিদি গোপাকে ফোন করছিলেন বিশেষ প্রয়োজনে। কিন্তু কিছুতেই ফোনে পাচ্ছিলেন না। তখন সন্দেহ হওয়ায় উদ্বেগের সঙ্গে দ্রুত কেষ্টপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি। আর সকাল হতেই গৌতমবাবু নিরাপত্তারক্ষীকে ফোন করেন। তাঁর নির্দেশ পেয়ে ওই ফ্ল্যাটে গিয়ে দেখেন পড়ে রয়েছে দু’‌জনের মৃতদেহ। তখনই খবর দেওয়া হয় বাগুইআটি থানায়। ততক্ষণে চলে আসেন গৌতমবাবুও।পুলিশ এসে মা ও মেয়ের মৃতদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠালে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

পুলিশ কী তথ্য পেয়েছে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, গৌতমবাবু বিধাননগর পুরসভার অস্থায়ী কর্মী। ফ্ল্যাটে যে সুইসাইড নোট পাওয়া গিয়েছে তাতে এক দম্পত্তি ও বিধাননগর পুরসভার তিনজন কর্মীর নাম রয়েছে। তাই ওই পাঁচজনকে প্রথমে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। পরে গ্রেফতার করা হয়। রবিবার গোপাদেবীর ফ্ল্যাটে কয়েকজন আসে। টাকার বিষয়ে তাঁকে জোর করে একটি কাগজে সই করিয়ে নেওয়া হয়। এই বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। কীটনাশক জাতীয় কিছু খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিক অনুমান। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে তা পরিষ্কার হবে। বিধাননগরের গোয়েন্দা প্রধান বিশ্বজিৎ ঘোষ বলেন, ‘‌আত্মহত্যা বলেই প্রাথমিক অনুমান। ওই পাঁচজনকে জেরা করা হচ্ছে।’‌

ভোটযুদ্ধ খবর

Latest News

'মন খারাপ হচ্ছে...' নীলাঞ্জনা-যিশুর বিচ্ছেদের গুঞ্জনের মাঝে কী লিখলেন রাজর্ষি? জেলে আগুন ধরিয়ে বন্দীদের মুক্ত করল পড়ুয়ারা, বাংলাদেশে মৃত বেড়ে ৭৫, উদ্বিগ্ন UN ১৯২৪-২০২৪, প্যারিসে অলিম্পিক গেমসের ১০০ বছরের কতটা বদলাল ‘গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’! শেষ কয়েকটা সপ্তাহ স্বপ্নের মতো গেছে! ভগবানকে ধন্যবাদ দিয়ে বলছেন সূর্যকুমার যাদব বরের বাড়িতে থাকেন, এখনও ‘স্ট্রাগলার’ করিনা! ছবি পিছু কত দর হাঁকান নবাব ঘরণী? অবশেষে ধরা পড়ল জামাল সর্দার, সোনারপুরের ত্রাস তিনদিন পর পুলিশের জালে ‘ভারতীয় দলের জন্য খুশি, তবে আরও বেশি দ্রাবিড়ের জন্য’…মন্তব্য খলনায়ক চ্যাপেলের 'দেশের জানাজা...' বাংলাদেশের মৃত ছাত্রদের ছবি শেয়ার করে কী লিখলেন সৃজিত-রাহুল? চিত্রার গান শ্রেয়ার গলায়, সঙ্গে রহমান! মিস করে থাকলে অবশ্যই দেখুন রাজ্যপালের মানহানি মামলায় ডিভিশন বেঞ্চে মুখ্যমন্ত্রী, এক্স হ্যান্ডেলে ফোঁস বোসের

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.