বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > চার বছরের সম্পর্কে ছেদ, কীভাবে মনখারাপ কাটিয়েছিলেন ‘দঙ্গল’ অভিনেত্রী সানিয়া?
সানিয়া মালহোত্রা। (ছবি সৌজন্যে - ইনস্টাগ্রাম)
সানিয়া মালহোত্রা। (ছবি সৌজন্যে - ইনস্টাগ্রাম)

চার বছরের সম্পর্কে ছেদ, কীভাবে মনখারাপ কাটিয়েছিলেন ‘দঙ্গল’ অভিনেত্রী সানিয়া?

  • সম্প্রতি নিজের বিচ্ছেদ নিয়ে এবং তার পরবর্তী সময়ে মনখারাপ কাটিয়ে উঠেছিলেন, তা নিয়ে মুখ খুলেছেন 'দঙ্গল' ছবি খ্যাত সানিয়া মালহোত্রা।

বিচ্ছেদ কোনওদিনই সুখের হয় না। যে ভালোবাসার মানুষটিকে আঁকড়ে ধরে স্বপ্ন দেখা চলেছিল নিরন্তর, তাঁর থেকে বাকি জীবনের জন্য দূরে সরে আসার মধ্যে কষ্ট, মনখারাপ যে ভালোমতোই থাকে তা বলার জন্য কোনও পুরস্কার নেই। কেউ কেউ ভালোবাসার মানুষটির সঙ্গে বিচ্ছেদের ফলে মনখারাপের গহীন সমুদ্রে ডুবে যায় আবার কেউ কেউ এই কষ্টের আগুন থেকে ফিনিক্সের মতো নবজন্ম নেয়। আরও শক্তিশালী হয়ে।এই দ্বিতীয় দলের অন্যতম সদস্য 'দঙ্গল' ছবি খ্যাত সানিয়া মালহোত্রা। সম্প্রতি নিজের বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি।

বড়পর্দা হোক কিংবা নেটফ্লিক্সের মতো জনপ্রিয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম, সবেতেই দারুনভাবে নিজের উপস্থিতির প্রমাণ রেখেছেন সানিয়া। তবে তাঁর সুন্দর এবং মিষ্টি মুখের পিছনে যে রয়েছে ছিন্নভিন্ন হওয়া এক হৃদয়ের অধিকারিণীর গল্প তা ভাবতে তাঁর ফ্যানদের একটু কষ্ট হয় বৈকি! তবে সত্যি যে সবসময়ই বিস্ময়ের। গত বছরই নিজের দীর্ঘ চার বছর সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে এসেছেন এই জনপ্রিয় বলি-অভিনেত্রী। আরও জানান দিল্লি থাকার সময় থেকেই তাঁর এই সম্পর্কের শুরু হয়েছিল। এবার টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন তিনি। জানিয়েছেন বিচ্ছেদের পর কীভাবে নিজেকে তিনি সামলেছিলেন, সেকথাও।

বিচ্ছেদ কোনওদিনই সুখের হয় না। যে ভালোবাসার মানুষটিকে আঁকড়ে ধরে স্বপ্ন দেখা চলেছিল নিরন্তর, তাঁর থেকে বাকি জীবনের জন্য দূরে সরে আসার মধ্যে কষ্ট, মনখারাপ যে ভালোমতোই থাকে তা বলার জন্য কোনও পুরস্কার নেই। কেউ কেউ ভালোবাসার মানুষটির সঙ্গে বিচ্ছেদের ফলে মনখারাপের গহীন সমুদ্রে ডুবে যায় আবার কেউ কেউ এই কষ্টের আগুন থেকে ফিনিক্সের মতো নবজন্ম নেয়। আরও শক্তিশালী হয়ে।এই দ্বিতীয় দলের অন্যতম সদস্য 'দঙ্গল' ছবি খ্যাত সানিয়া মালহোত্রা। সম্প্রতি নিজের বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি।

বড়পর্দা হোক কিংবা নেটফ্লিক্সের মতো জনপ্রিয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম, সবেতেই দারুনভাবে নিজের উপস্থিতির প্রমাণ রেখেছেন সানিয়া। তবে তাঁর সুন্দর এবং মিষ্টি মুখের পিছনে যে রয়েছে ছিন্নভিন্ন হওয়া এক হৃদয়ের অধিকারিণীর গল্প তা ভাবতে তাঁর ফ্যানদের একটু কষ্ট হয় বৈকি! তবে সত্যি যে সবসময়ই বিস্ময়ের। গত বছরই নিজের দীর্ঘ চার বছর সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে এসেছেন এই জনপ্রিয় বলি-অভিনেত্রী। আরও জানান দিল্লি থাকার সময় থেকেই তাঁর এই সম্পর্কের শুরু হয়েছিল। এবার টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন তিনি। জানিয়েছেন বিচ্ছেদের পর কীভাবে নিজেকে তিনি সামলেছিলেন, সেকথাও।

|#+|

দীর্ঘ চার বছর ধরে 'একটি 'লং ডিসট্যান্স রিলেশনশিপ'-য়ে ছিলেন সানিয়া। জানা গেল, গত বছরই সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে এসেছেন তিনি। তবে বিচ্ছেদের পর যে অসম্ভব মনখারাপের মধ্যে গেছেন তিনি, সেকথা জানাতে বিন্দুমাত্র কুন্ঠা বোধ করেননি এই বলি-অভিনেত্রী। বললেন, 'আমার মনে হয় বিচ্ছেদ বেশিরভাগ মানুষের জন্যেই খুব একটা সুখকর নয়। অত্যন্ত যে কঠিন থাকে এই পরিস্থিতি সেকথা বলাই বাহুল্য। আমার জন্যও এই একই কথা প্রযোজ্য। হৃদয় এফোঁড় ওফোঁড় হয়ে গেছিল। তবে জানেন তো, এই সময়ের পরপরই আরও বেশি করে কাজে ডুবে গেছিলাম। নিজের সর্বস্ব ঢেলে দিয়েছিলাম কাজে। নিজের ব্যাপারেও যত্নশীল হয়েছিলাম'।

এই বিষয়ে 'ইন্ডিয়া টুডে'-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ২৯ বছর বয়সী বলি-সুন্দরীর সংযোজন, 'সম্পর্কের বিভিন্ন খুঁটিনাটির দিকগুলোর বিষয়ে এখন আরও ওয়াকিবহাল আমি। গত বেশ কিছু সময় ধরেই আমি সিঙ্গল। এইমুহূর্তে আমার সমস্ত মনযোগ স্রেফ নিজের উপরেই রয়েছে। নিজের মানসিক স্বাস্থ্যের দিকেও খেয়াল রাখছি। ব্যাস! বুঝেছি নিজেকে ভালোবাসাটা ভীষণভাবে প্রয়োজন'।

বন্ধ করুন