বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ৩৪-এ পা বরুণের,জানালেন প্রথম আলাপে তাঁকে 'ক্ষুধার্ত বাচ্চা' ভেবেছিলেন লিজা হেডন
প্রথম আলাপে বরুণকে 'ক্ষুধার্ত বাচ্চা' ভেবেছিলেন লিজা হেডন। ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস 
প্রথম আলাপে বরুণকে 'ক্ষুধার্ত বাচ্চা' ভেবেছিলেন লিজা হেডন। ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস 

৩৪-এ পা বরুণের,জানালেন প্রথম আলাপে তাঁকে 'ক্ষুধার্ত বাচ্চা' ভেবেছিলেন লিজা হেডন

  • শনিবার ৩৪-এ পা দিলেন বরুন ধাওয়ান। জানেন কি অগুনতি অষ্টাদশীর 'হার্টথ্রব ' এই নায়ককে প্রথম দর্শনে একজন 'ক্ষুধার্ত বাচ্চা' বলে মনে হয়েছিল লিজা হেডনের ? নিজের মুখেই সেকথা জানালেন বরুণ।

শনিবার ৩৪-এ পা রাখলেন বরুণ ধাওয়ান। বয়স মধ্যে তিরিশের দিকে গুটি গুটি পায়ে এগোলেও তাঁর ' কলেজ বয় চার্ম' এ মজে দর্শককুল। অসংখ্য অষ্টাদশীর 'হার্টথ্রব' তিনি। পর্দায় নাচ হোক কিংবা অভিনয় এই দুইয়েই নিজের দক্ষতার ছাপ একাধিকবার রেখেছেন এই অভিনেতা। উল্টোদিকে দর্শকের দলও যে তাঁকে গ্রহণ করেছে তার প্রমাণ বরুনের বেশিরভাগ ছবির বক্স অফিস কালেকশন রিপোর্ট দেখলেই স্পষ্ট মালুম হবে। বর্তমানে বলিউডের অন্যতম বক্স-অফিস নির্ভরযোগ্য অভিনেতা হিসেবে তাঁর নাম থাকবে প্রথম সারিতেই। এইমুহূর্তে ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম 'হায়েস্ট পেইড' অভিনেতাও যে তিনি সেকথাও জানিয়ে রাখা ভালো। তবে জানেন কি যাঁর মহিলা অনুরাগীদের সংখ্যাটি যথেষ্ট চোখ কপালে ওঠার মতো সেই বরুণ ধাওয়ানকে প্রথম দর্শনে 'ক্ষুধার্ত বাচ্চা' বলে মনে হয়েছিল বলি-অভিনেত্রী ও সুপারমডেল লিজা হেডনের। এবং সেকথা নিজেই জানিয়েছিলেন বরুণ! আসুন,শুরু থেকেই জানা যাক বিষয়টা।

বরুণ ধাওয়ান। ছবি সৌজন্যে - ট্যুইটার
বরুণ ধাওয়ান। ছবি সৌজন্যে - ট্যুইটার

এক সাক্ষাৎকারে এই বলি-তারকা নিজেই জানিয়েছিলেন লিজার সঙ্গে তাঁর প্রথম মোলাকাতের কথা। বরুণের জবানিতে,' তখন আমার বয়স মেরেকেটে ১৬। গোয়ায় সমুদ্র সৈকতে ধারে সারি বেঁধে দাঁড়িয়ে থাকা মনোরম একটি ' শ্যাক'-এ জমিয়ে চলছে পার্টি। সেই পার্টিতে আমার সঙ্গে হাজির ছিলেন অর্জুন রামপালও। তো একপেট খিদে নিয়েই সেখানে হাজির হয়েছিলাম। পার্টিতে খাবারের সন্ধানে এদিক ওদিক যখন তাকাচ্ছি তখনই আমার চোখ পড়ে লিজার দিকে। সেই প্রথম আমার লিজাকে দেখা। যদিও তখন সে অতটা বিখ্যাত ছিল না। মানে থাকতেও পারে,আমার জানা ছিল না।' এরপর সেদিনের সারাটা সন্ধ্যে লিজার সৌন্দর্য্যের ভাবনাতেই যে বুঁদ হয়ে ছিলেন তিনি, অকপটে সেই স্বীকারোক্তিও শোনা যায় অভিনেতার মুখে। তবে ঘটনার শেষ এখানেই নয়। বরুণ আরও জানান,' এরপর লিজার সঙ্গে আমার আলাপ হয়। সেই পার্টিতে তৎকালীন বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ছিল সে।ওরা দু'জনেই আমার থেকে সামান্য বড় ছিল। তাই বিশেষ পাত্তা টাত্তা দেয়নি আমাকে। এদিকে আমার পেয়েছিল ক্ষিদে। লিজা তা বুঝতে পেরে নিজের প্লেট থেকে আমাকে স্যান্ডউইচ সেধেছিল। আমিও দ্বিরুক্তি না করে ঝটপট খাওয়া শুরু করে দিয়েছিলাম।' বরুণের তাই দৃঢ় বিশ্বাস প্রথম আলাপেই তাঁকে ' ক্ষুধার্ত বাচ্চা' বলেই ভেবে নিয়েছিলেন লিজা।

প্রসঙ্গত, এর দীর্ঘ বছর পর এই লিজার সঙ্গে বরুণের নাম জড়িয়ে গুঞ্জন ওঠে। সেই গুঞ্জনের তীব্রতা বেড়ে ওঠে এতটাই যে বাধ্য হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কৈফিয়ৎ দিয়েছিলেন লিজা।গোটা বিষয়টিকে বরুণ অবশ্য মজার ছলেই নিয়েছিলেন। বর্তমানে স্ত্রী নাতাশা দালালের সঙ্গে সুখে ঘরকন্না করছেন বরুণ,অন্যদিকে স্বামী ডিনো লালভানির সঙ্গে নিজেদের তৃতীয় সন্তানের অপেক্ষায় দিন গুনছেন লিজা।

 

বন্ধ করুন