বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Bihar Assembly Election Results 2020: মুসলিম-অধ্যুষিত এলাকায় AIMIM-এর দাপটে কপাল পুড়ল তেজস্বীদের, ফায়দা তুলল NDA
এআইএমআইএম প্রধান আসাউদ্দিন ওয়েইসি (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
এআইএমআইএম প্রধান আসাউদ্দিন ওয়েইসি (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

Bihar Assembly Election Results 2020: মুসলিম-অধ্যুষিত এলাকায় AIMIM-এর দাপটে কপাল পুড়ল তেজস্বীদের, ফায়দা তুলল NDA

গত বছর লোকসভা ভোটে সীমাঞ্চলে রীতিমতো চমক দিয়েছিল ওয়েইসির দল।

বাকি রাজ্যে তেমন দাগ কাটতে পারেনি। কিন্তু সীমাঞ্চলে এতটাই প্রভাব বিস্তার করল এআইএমআইএম, যে তাতে সম্ভবত ‘মহাগঠবন্ধন’-এর সংখ্যাগরিষ্ঠতার স্বপ্ন চুরমার হয়ে গেল। আর মুসলিম-অধ্যুষিত এলাকায় ভোট কাটাকুটির সুফল ঘরে তুলল এনডিএ জোট।

বিহারের সীমাঞ্চলের চার জেলা - পূর্ণিয়া, কাটিহার, অররিয়া এবং কিষানগঞ্জের ২৪ টি বিধানসভা আসনে ভোটার সংখ্যা প্রায় ৬০ লাখ। যা এবারের নির্বাচনে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ বলে আগেভাগেই জানিয়েছিলেন বিশেষজ্ঞ। সংখ্যালঘু-অধ্যুষিত সেই অঞ্চলে গতবার একতরফা দাপট দেখিয়েছিল কংগ্রেস, আরজেডি এবং জেডিইউয়ের জোট। কিন্তু আসাউদ্দিন ওয়েইসির দলের ১৩ জন প্রার্থীর কারণে এবার সমীকরণ পুরোপুরি পালটে গিয়েছে। 

বিহার বিধানসভা ভোট ফলাফল লাইভ আপডেট দেখুন এখানে

নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬ টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত আমৌরেতে ৫৫.৮৫ শতাংশ ভোট পেয়েছেন এআইএমআইএমের রাজ্য সভাপতি আখতারুল ইমান। তাঁর থেকে ৩৬,০৫৫ ভোটে পিছিয়ে আছেন নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তথা জেডিইউ প্রার্থী সাবা জাফর। কোচাধামনে জেডিইউ প্রার্থী মুজাহিদ আলমের থেকে ২৯,৪৩৫ ভোটে এগিয়ে আছেন এআইএমআইএমের মহম্মদ ইজহার আসফি। এছাড়াও বাহাদুরগঞ্জে বিকাশশীল ইনসান পার্টির প্রার্থী লক্ষণ লাল পণ্ডিতের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর ১৫,৩৬১ ভোটে এগিয়ে আছেন এআইএমআইএম প্রার্থী মহম্মদ আনজার নায়েমির। আরজেডি প্রার্থী সরফরাজ আলমকে হারিয়ে জোকিহাটে ৭,৩৮৩ ভোটি জিতে গিয়েছেন এআইএমআইএম প্রার্থী শাহনাজ।

গত বিধানসভা ভোটে অবশ্য এআইএমআইএমের চূড়ান্ত দুরাবস্থা হয়েছিল। ছ'টির মধ্যে পাঁচটি আসনে জামানত জব্দ হয়েছিল। একমাত্র কোচাধামনে মুখ বেঁচেছিল। সেখানে ২৬.১৪ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হয়েছিলেন এআইএমআইএম প্রার্থী। তবে গত বছর লোকসভা ভোটে সীমাঞ্চলে রীতিমতো চমক দিয়েছিল ওয়েইসির দল। মুসলিম-অধ্যুষিত কিষানগঞ্জে ২৬ শতাংশের বেশি ভোট টেনেছিল। এগিয়ে ছিল কোচাধামন এবং বাহাদুরগঞ্জে বিধানসভায়। আমৌরেতে দ্বিতীয় স্থানে ছিল। কিষানগঞ্জ, ঠাকুরগঞ্জ এবং বইসিতে ছিল তৃতীয় স্থানে। সেই চমক ধরে সে বছরের কিষানগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে জয়ী হয়েছিলেন এআইএমআইএম প্রার্থী কামরুল হুডা। তাতে আত্মবিশ্বাস জুগিয়ে এবার ২০ টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে এআইএমআইএম।

এবার কিষানগঞ্জে অবশ্য তৃতীয় স্থানে নেমে গিয়েছেন বিদায়ী বিধায়ক। বইসিতে বরং ১২,০২৬ ভোটে এগিয়ে আছে এআইএমআইএম। আর এআইএমআইএমের সেই ভালো ফলের জেরে ব্যাকফুটে পড়ে গিয়েছে ‘মহাগঠবন্ধন’। এনডিএ-বিরোধী যে ভোট পেতেন তেজস্বী যাদবরা, তাতে ভাগ বসিয়েছে এআইএমআইএম। আর সেই ভোট কাটাকুটির সমীকরণে সীমাঞ্চলে বাজিমাত করেছে এনডিএ জোট।

ভোট বিশেষজ্ঞ নরেশ কুমার শ্রীবাস্তব জানান, সীমাঞ্চলে মুসলিম ও যাদব ভোট ভাগাভাগি হয়ে গিয়েছে। তাতে লাভের গুড় ঘরে তুলেছে বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোট। তিনি বলেন, 'মোদী ম্যাজিকের সঙ্গে এআইএমআইএমের দাপটের ফলে সীমাঞ্চলে ভোটের ফলাফল নির্ধারিত হল বলে মনে হচ্ছে।'

বন্ধ করুন