বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'অস্থির মনের মানুষ, পাকিস্তানের সঙ্গী', কংগ্রেসত্যাগী ক্যাপ্টেনের নিশানায় সিধু
অমরিন্দর সিংয়ের সঙ্গে নভজ্যোত সিং সিধু (ফাইল ছবি) (HT_PRINT)
অমরিন্দর সিংয়ের সঙ্গে নভজ্যোত সিং সিধু (ফাইল ছবি) (HT_PRINT)

'অস্থির মনের মানুষ, পাকিস্তানের সঙ্গী', কংগ্রেসত্যাগী ক্যাপ্টেনের নিশানায় সিধু

  • প্রাক্তন ক্রিকেটার সিধুকে পরপর তোপ দাগেন অমরিন্দর। সিধুকে 'পাকিস্তানের সঙ্গী' বলে আখ্যা দেন অমরিন্দর। পাশাপাশি সিধুকে 'অস্থির মনের ব্যক্তি' বলেও অভিহিত করেন ক্যাপ্টেন।

মঙ্গলবার শেষ পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেস দল থেকে পদত্যাগ করেন পঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং। আর কংগ্রেস ছাড়তেই নভজ্যোত সিং সিধুকে আক্রমণ করলেন এই বর্ষীয়ান নেতা। মঙ্গলবার দলের প্রধান সোনিয়া গান্ধীর কাছে পাঠানো তার সাত পৃষ্ঠার পদত্যাগপত্রে প্রাক্তন ক্রিকেটার সিধুকে পরপর তোপ দাগেন অমরিন্দর। সিধুকে 'পাকিস্তানের সঙ্গী' বলে আখ্যা দেন অমরিন্দর। পাশাপাশি সিধুকে 'অস্থির মনের ব্যক্তি' বলেও অভিহিত করেন ক্যাপ্টেন।

সোনিয়া গান্ধীকে পাঠানো চিঠিতে ক্যাপ্টেন লেখেন, 'আমার গভীর আপত্তি এবং পঞ্জাবের প্রায় সমস্ত সাংসদের সর্বসম্মত পরামর্শের বিরুদ্ধে গিয়ে আপনি পাকিস্তানের একজন সঙ্গী নভজ্যোত সিধুকে পঞ্জাব কংগ্রেস কমিটির প্রেসিডেন্ট পদে নিয়োগ করেন। পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল বাজওয়া এবং প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে প্রকাশ্যে আলিঙ্গন করেছিলেন এই ব্যক্তি। খান এবং বাজওয়া ভারতীয়দের হত্যা করার জন্য সীমান্তের ওপারে সন্ত্রাসীদের পাঠানোর জন্য দায়ী।'

ক্যাপ্টেন আরও লেখেন, 'খ্যাতির জন্য সিধুর একমাত্র কাজ ছিল নিয়মিত আমাকে এবং আমার সরকারকে গালি দেওয়া। আমি প্রায় তাঁর বাবার বয়সী কিন্তু এটি তাঁকে প্রকাশ্যে এবং ব্যক্তিগতভাবে আমার বিরুদ্ধে নোংরা এবং জঘন্যতম ভাষা ব্যবহার করা থেকে বিরত করেনি।'

প্রসঙ্গত, কংগ্রেস হাইকম্যান্ডের চাপে পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী পদে ইস্তফা দেওয়ার পর থেকেই সোনিয়া গান্ধীর দলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয় ক্যাপ্টেনের। এমনকী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গেও দেখাও করেন তিনি। এই আবহে বিজেপির সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে নির্বাচনে লড়তে আগ্রহী ক্যাপ্টেন। তিনি পঞ্জাব লোক কংগ্রেস নামক নয়া দল তৈরির ঘোষণাও করেছেন গতকাল।

বন্ধ করুন