চিনে ভয়াবহ করোনাভাইরাস সংক্রমণকে ‘আন্তর্জাতিক জরুরি অবস্থা’ বলে এ দিন ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)।
চিনে ভয়াবহ করোনাভাইরাস সংক্রমণকে ‘আন্তর্জাতিক জরুরি অবস্থা’ বলে এ দিন ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)।

করোনাভাইরাস সংক্রমণে চূড়ান্ত সতর্কতা WHO-এর, ভারতীয়দের আনতে উহানে বিমান

  • করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পরে কার্যত গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন চিনে বসবাসকারী বহু ভারতীয়। তাঁদের দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে উদ্যোগী দেশের ভারতীয় দূতাবাস।

করোনাভাইরাস নিয়ে বিশ্বজোড়া আতঙ্কের মাঝে শুক্রবার দুপুর ১২.৩০ মিনিটে উহানে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে রওনা দিল এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান।

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পরে কার্যত গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন চিনে বসবাসকারী বহু ভারতীয়। তাঁদের দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে উদ্যোগী হয়েছে সে দেশের ভারতীয় দূতাবাস। সেই উদ্দেশেই এ দিন দুপুরে উহানের পথে পাড়ি দিল এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান।

চিনে ভয়াবহ করোনাভাইরাস সংক্রমণকে ‘আন্তর্জাতিক জরুরি অবস্থা’ বলে এ দিন ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। গত ডিসেম্বর মাসে চিনের উহান অঞ্চলে প্রথম এই ভাইরাস সংক্রমণের খবর পাওয়া যায়। এর পর তা ক্রমে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে।

আরও পড়ুন: করোনাভাইরাসে মৃত্যু হল বাঙালির, মালয়েশিয়ায় মৃত ত্রিপুরার মুনির

চিনে এই মারণ ভাইরাস সংক্রমণের জেরে এ পর্যন্ত মারা গিয়েছেন ২১৩ জন রোগী। মোট ৯৩৫৬ মানুষের মধ্যে এই জীবাণুর সংক্রমণ দেখা গিয়েছে। পরিস্থিতি বিচার করে বিদেশিদের আগমনের উপরে স্থগিতাদেশ জারি করেছে বেজিং। পাশাপাশি, রোগে আক্রান্তদের বিচ্ছিন্ন করে পৃথক চিকিত্সার ব্যবস্থা করা হয়েছে। অবিশ্বাস্য দ্রুততার সঙ্গে গড়ে তোলা হয়েছে তাঁদের চিকিত্সার জন্য বিশেষ হাসপাতাল।

আরও পড়ুন: করোনাভাইরাসের উপসর্গ কী কী ? অসুখই বা কীভাবে রুখবেন? হেল্পলাইন চালু কেন্দ্রের

চিনে উদ্ভূত এই ভাইরাস আপাতত বিশ্বের কমপক্ষে ১৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে তার জেরকে চিনে ভ্রমণ ও বাণিজ্যের উপরে এখনও কোনও নিষেধাজ্ঞা চাপায়নি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)।

পরিসংখ্যান বলছে, শুধুমাত্র চিনের হুবেই প্রদেশে নতুন করে করোনাভাইরাস সংক্রামিত হয়েছে অন্তত ১২০০ মানুষের শরীরে। এর জেরে হুবেইতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন মোট ৫৮০৬ জন।

এ দিন সকালে জেনিভায় রুদ্ধদুয়ার বৈঠকের পরে করোনাভাইরাস সংক্রমণকে ‘আন্তর্জাতিক উদ্বেগ উত্পন্নকারী স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা’ বলে ঘো,ণা করেন WHO-এর ডিরেক্টর জেনারেল তেদ্রোস আধানোম ঘেব্রেইসাস।

বন্ধ করুন