বাড়ি > ঘরে বাইরে > প্যাংগংয়ের উঁচু এলাকায় ক্যামেরা-সেনসর, তাও ভারতের কাছে ‘হেরে’ পালাল চিনা সেনা
প্যাংগংয়ের উঁচু এলাকায় ক্যামেরা-সেনসর, তারপরও ভারতের কাছে হেরে ফিরল চিনা সেনা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
প্যাংগংয়ের উঁচু এলাকায় ক্যামেরা-সেনসর, তারপরও ভারতের কাছে হেরে ফিরল চিনা সেনা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

প্যাংগংয়ের উঁচু এলাকায় ক্যামেরা-সেনসর, তাও ভারতের কাছে ‘হেরে’ পালাল চিনা সেনা

ভারতীয় ভূখণ্ডের সেই এলাকা থেকে চিনা সরঞ্জাম সরিয়ে দিয়েছে সেনা।

প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণ তীরে উঁচু জায়গায় ছিল চিনের ক্যামেরা, নজরদারির সরঞ্জাম, সেনসর। প্রতিপক্ষের সেই সুবিধা সত্ত্বেও চিনকে সেই এলাকা দখল করতে দেয়নি ভারতীয় সেনা। উলটে সেখান থেকে ‘হেরে’ ফিরেছে চিনা সেনা।

সূত্র উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা এএনআই বলেছে, ‘উঁচু এলাকার কাছে ভারতের গতিবিধির উপর নজর রাখার জন্য আধুনিক ক্যামেরা ও নজরদারির সরঞ্জাম রেখেছে চিনা সেনা। তা সত্ত্বেও সেই জায়গাটি দখল করে নিয়েছে ভারত।’ তারপর ভারতীয় ভূখণ্ডের সেই এলাকা থেকে চিনা সরঞ্জাম সরিয়ে দিয়েছে সেনা।

তবে শুধু প্যাংগং সো লেকের কাছে নয়, এএনআই জানিয়েছে যে ভারতীয় বাহিনীর গতিবিধির উপর নজরদারি চালানোর জন্য প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর সর্বত্র এরকম সরঞ্জাম রেখেছে। ওই এলাকাগুলিতে ভারতীয় সেনা টহলদারির বিষয়টি নজরে এলেই দ্রুত জবাব দেওয়াই লক্ষ্য লাল ফৌজের। তাও কিনা সেই এলাকাগুলি ভারতের ভূখণ্ডের মধ্যে পড়ে। যদিও বেজিংয়ের দাবি, ওই এলাকাগুলি চিনের।

প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণ দিকে বিস্তীর্ণ এলাকা এবং নিকটবর্তী স্প্যাঙ্গুর গ্যাপের উঁচু স্থানগুলিও যথারীতি নিজেদের বলে দাবি করে চিনা সেনা। সুবিধাজনক অবস্থায় থাকতে সেই এলাকাগুলি জবরদখল করতে মরিয়া তারা। সেই উদ্দেশ্যেই স্প্যাঙ্গুর গ্যাপের উন্মুক্ত প্রান্তরে নিজেদের সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করেছিল পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ)।

সূত্র উদ্ধৃত করে এএনআই জানিয়েছে, স্পেশাল অপারেশনস ইউনিট ও শিখ লাইট ইনফ্যান্ট্রি বাহিনী-সহ ভারতীয় সেনার প্রতিরোধে মুখ পুড়িয়ে ফিরতে হয়েছে চিন। তাই নিজেদের ঘায়ে কিছুটা মলম লাগাতে আবারও একই কাজ করতে পারে লাল ফৌজ। ওই এলাকায় টহলদারির সময় মাইন ফেটে মৃত্যু হয়েছিল এক জওয়ানের। তাই কোনও ঝুঁকি না নিয়ে বিএমপি ইনফ্যান্ট্রি কমব্যাট ভেহিকেল এবং বিভিন্ন ধরনের ট্যাঙ্ক-সহ সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করেছে ভারতীয় সেনা।

বন্ধ করুন