বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কয়লার ব্লক বণ্টনে দুর্নীতি, ৩ বছরের কারাদণ্ড প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর
কয়লা দুর্নীতি মামলায় ৩ বছরের কারাদণ্ড বাজপেয়ী আমলের কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর (ছবি সৌজন্য মিন্ট)
কয়লা দুর্নীতি মামলায় ৩ বছরের কারাদণ্ড বাজপেয়ী আমলের কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর (ছবি সৌজন্য মিন্ট)

কয়লার ব্লক বণ্টনে দুর্নীতি, ৩ বছরের কারাদণ্ড প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

  • একইসঙ্গে তৎকালীন কয়লা মন্ত্রকের দুই শীর্ষ আধিকারিককেও তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

কয়লা দুর্নীতি মামলায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী দিলীপ রায়কে তিন বছরের কারাদণ্ড দিল বিশেষ সিবিআই আদালত। ১৯৯৯ সালে ঝাড়খণ্ডে কয়লা ব্লক বণ্টনে অনিয়মের দায়ে দোষী সাব্যস্ত হয়েছিলেন তিনি। গিরিডি জেলায় ক্যাস্ট্রন টেকনোলজিস লিমিটেডকে ১০৫.১৫৩ হেক্টরের একটি পরিত্যক্ত কয়লা খনি এলাকা সংক্রান্ত মামলায় রায়দান করা হয়েছে।

গত ৬ অক্টোবর অটলবিহারী বাজপেয়ী সরকারের রাষ্ট্রমন্ত্রীকে (কয়লা) ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪০৯ (সরকারের প্রতিনিধির আস্থা ভঙ্গের অপরাধ), ৪২০ (প্রতারণা), ১২০-বি (অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র) এবং দুর্নীতি দমন আইনের একাধিক ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল। শুনানির সময় দিলীপের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সওয়াল করেছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। 

তবে আজ (সোমবার) দিলীপকে তিন বছরের কারাদণ্ডের সাজা দিয়েছেন বিশেষ বিচারক ভারত পরাশর। একইসঙ্গে তৎকালীন কয়লা মন্ত্রকের দুই শীর্ষ আধিকারিক প্রদীপ কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় ও নিত্যানন্দ গৌতম এবং ক্যাস্ট্রন টেকনোলজিস লিমিটেডের অধিকর্তা মহেন্দ্র কুমার আগরওয়ালাকেও তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। প্রত্যেককে ১০ লাখ টাকা জরিমানা ধার্য করেছে বিশেষ আদালত। এছাড়াও ক্যাস্ট্রন টেকনোলজিস এবং ক্যাস্ট্রন মাইনিং লিমিটেডকে যথাক্রমে ৬০ লাখ এবং ১০ লাখ টাকা জরিমানা ধার্য করা হয়েছে।

নব্বইয়ের দশকে বিজু জনতা দলের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন পেশায় হোটেল ব্যবসায়ী দিলীপ। ২০০২ সালে অবশ্য বিজেডির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছিলেন। সে বছরই বিজেপি বিধায়কদের সাহায্য নির্দল প্রার্থী হিসেবে রাজ্যসভার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০০৪ সালে আবার কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু ২০০৮ সালে কংগ্রেস ছেড়ে পরের বছরই বিজেপিতে যোগ দেন। ২০১৪ সালে রউরকেল্লা থেকে বিজেপি টিকিটে জিতে বিধায়কও হয়েছিলেন।

বন্ধ করুন