বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Jinping-Biden Phone Call: ‘আগুন নিয়ে খেলবেন না’, তাইওয়ান ঘিরে উত্তেজনার মাঝেই বাইডেনকে হুঁশিয়ারি জিনপিংয়ের

Jinping-Biden Phone Call: ‘আগুন নিয়ে খেলবেন না’, তাইওয়ান ঘিরে উত্তেজনার মাঝেই বাইডেনকে হুঁশিয়ারি জিনপিংয়ের

জো বাইডেন এবং শি জিনপিং  (AP)

তাইওয়ানে ‘আগুনের সাথে না খেলার জন্য’ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করেন শি জিনপিং। তবে এরই মাঝে উল্লেখ্যযোগ্যভাবে প্রথম ব্যক্তিগত শীর্ষ বৈঠকের সময় নির্ধারণ করতে সম্মত হন দুই রাষ্ট্রপ্রধান।

মার্কিন রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন এবং চিনা রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং বৃহস্পতিবার ফোনে কথা বললেন। তাইওয়ান ঘিরে তৈরি হওয়া উত্তেজনাপূর্ণ আবহওয়ায় ফোনালাপে মার্কিন রাষ্ট্রপতিকে হুঁশিয়ারি দেন চিনা রাষ্ট্রপতি। তাইওয়ানে ‘আগুনের সাথে না খেলার জন্য’ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করেন শি জিনপিং। তবে এরই মাঝে উল্লেখ্যযোগ্যভাবে প্রথম ব্যক্তিগত শীর্ষ বৈঠকের সময় নির্ধারণ করতে সম্মত হন দুই রাষ্ট্রপ্রধান।

উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত পাঁচ দফায় ফোনে বা ভিডিয়ো কলে কথা হয়েছে বাইডেন ও জিনপিংয়ের। তবে বাইডেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর থেকে একবারও তিনি চিনা রাষ্ট্রপতির মুখোমুখি হননি। এই আবহে দুই রাষ্ট্রপ্রধানই সম্মত হন যে তাঁরা মুখোমুখি দেখা করবেন। মুখোমুখি সাক্ষাতের সুবিধা নিয়ে কথা হয় বাইডেন ও জিনপিংয়ের মধ্যে। তাঁরা জানান, তাঁদের সংশ্লিষ্ট দল একটি উপযুক্ত সময় বের করে বৈঠকের দিনক্ষণ নির্ধারণ করবে।

জানা গিয়েছে, প্রায় ২ ঘণ্টা ১৭ মিনিট ধরে কথা হয় দুই রাষ্ট্রপ্রধানের। তাইওয়ান ছাড়াও আরও অনেক ইস্যুতেই দুই নেতার কথা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। চিনা সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, জিনপিং বাইডেকে বলেন, ‘যারা আগুন নিয়ে খেলবে, তারা শেষ পর্যন্ত পুড়ে যাবে।’ উল্লেখ্য, তাইওয়ানকে চিন নিজেদের ভূখণ্ড বলে দাবি করে। তবে সাম্প্রতিককালে তাইওয়ানের সঙ্গে মার্কিন সম্পর্ক আরও গভীর হয়েছে। এই বিষয়টিকে ভালো নজরে দেখছে না চিন। এরই মাঝে বাইডেন ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত মার্কিন কংগ্রেসের স্পিকার ন্যানসি পেলোসি তাইওয়ান সফরে যেতে পারেন বলে জানা গিয়েছে। এই খবরে আরও চটেছে চিন। এর আগেও অবশ্য মার্কিন আধিকারিকরা বারংবার তাইওয়ান সফরে গিয়েছেন। তবে হাইজ অফ রিপ্রেসেন্টেটিভের স্পিকারের তাইওয়ান সফরকে প্ররোচণা হিসেবে দেখছে বেজিং। কারণ পেলোসি তাইওয়ান সফর করলে মার্কিন সামরিক নিরাপত্তার সঙ্গে সেখানে আসবেন। এই সফর বাস্তবায়িত হলে ওয়াশিংটনকে এর ‘দাম দিতে হবে’ বলে হুঁশিয়ার করে দিয়েছে চিন।

বন্ধ করুন