বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Human trafficking: কাজের টোপ দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভারতে এনে নামানো হত দেহ ব্যবসায়, উদ্ধার ৭, ধৃত ৬

Human trafficking: কাজের টোপ দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভারতে এনে নামানো হত দেহ ব্যবসায়, উদ্ধার ৭, ধৃত ৬

মানপাদা থানা।

এই ঘটনায় যে বাংলাদেশিননাগরিকদের গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের নাম হল– ইউনুস শেখ ওরফে রানা, সাহিল শেখ, ফিরদৌস সরদার, আয়ুবলী শেখ, বিপ্লব খান এবং যোগেশ কালান। এরমধ্যে যোগেশ স্থানীয় বাসিন্দা। মূল অভিযুক্ত হল ইউনুস শেখ ওরফে রানা গ্রেফতার করেছে।

ভালো কাজ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বাংলাদেশি তরুণীদের অবৈধভাবে নিয়ে আসা হত ভারতে। আর তারপরে তাদের আটকে রেখে নামানো হত দেহ ব্যবসায়। এরজন্য পাচারকারীরা একটি বাংলো ভাড়া নিয়ে সেখানেই চালাত এই ব্যবসা। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সেখানে তল্লাশি চালিয়ে পুলিশ ৭ বাংলাদেশি মহিলাকে উদ্ধার করেছে। এর  পাশাপাশি ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যাদের মধ্যে পাঁচ জন হল বাংলাদেশি নাগরিক। সোমবার মহারাষ্ট্রের মানপাদা থানার পুলিশ ডম্বিভলির হেদুথানে এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে এই চক্রের পর্দা ফাঁস করে।

আরও পড়ুন: কাজের লোভ দেখিয়ে যৌনপল্লিতে পাচারের ছক, শিলিগুড়িতে গ্রেফতার ৫ বাংলাদেশি মহিলা

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘটনায় যে বাংলাদেশিননাগরিকদের গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের নাম হল– ইউনুস শেখ ওরফে রানা, সাহিল শেখ, ফিরদৌস সরদার, আয়ুবলী শেখ, বিপ্লব খান এবং যোগেশ কালান। এরমধ্যে যোগেশ স্থানীয় বাসিন্দা। মূল অভিযুক্ত হল ইউনুস শেখ ওরফে রানা গ্রেফতার করেছে। অভিযুক্তদের কাছ থেকে কোনও বৈধ আইনি নথিপত্র পাওয়া যায়নি।

পুলিশ জানিয়েছে, বাংলাদেশ ভিত্তিক একটি এনজিওর কর্মকর্তা মুক্তা দাস গত ৫ অক্টোবর পুনের ফ্রিডম ফার্ম এনজিওকে রানার সম্পর্কে সতর্ক করেছিলেন। তিনি জানিয়েছিলেন, চাকরি দেওয়ার নাম করে এক মহিলাকে বাংলাদেশ থেকে ভারতে নিয়ে  গিয়ে একটি ঘরে আটকে রাখে এবং তাঁকে বারবার ধর্ষণ করে। এরপর পুনের এনজিও পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে। ঘটনায় মানপাদা পুলিশ একটি দল গঠন করে ৭ অক্টোবর গভীর রাতে হেদুথানে এলাকায় অবস্থিত একটি বাড়িতে অভিযান চালায়। সেখানেই পুলিশ এক নাবালিকা এবং আরও ৬ জন বাংলাদেশি মহিলাকে খুঁজে পায় এবং তাদের উদ্ধার করে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে, মূল অভিযুক্ত রানা তাদের ভারতে চাকরি দেওয়ার লোভ দেখিয়ে নিয়ে আসত এবং টাকার বিনিময়ে মানুষের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য করত।

মানপাদা থানার ওসি সুনীল তরলামে জানান, তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশের দুই অফিসার এবং দশজন পুলিশ কর্মী সেখানে তল্লাশি চালায়। তবে অভিযুক্তরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। প্রযুক্তির সাহায্যে পরে অভিযুক্তদের একটি জঙ্গল এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি, মানব পাচার প্রতিরোধ আইন এবং বৈদেশিক আইনের বিভিন্ন ধারায় মামলা দায়ের করে। পুলিশ তাদের কাছ থেকে ২৫টি আধার কার্ড, ১০টি প্যান কার্ড এবং চারটি জন্ম শংসাপত্র বাজেয়াপ্ত করেছে। ধৃতদের আদালতে তোলা হলে তাদের ৭ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ঘরে বাইরে খবর
বন্ধ করুন

Latest News

পুলিশের সামনে দাপট! ইডির হাত থেকে রেহাই পেতে মরিয়া শাহজাহান, আগাম জামিনের আবেদন জমাট জুটি ধাওয়ান-কার্তিকের, শাহবাজদের বিরুদ্ধে '১০ ওভারেই' জয় ডিওয়াই পাতিল ব্লুর চুপিসাড়ে বিয়ের পর রায় পরিবারে বধূবরণ! সত্যজিতের নাতির রিসেপশনের প্রথম ছবি শ্রেয়স এবং ইশান কেন্দ্রীয় চুক্তি ফিরে পেতে পারেন, কী ভাবে? জানালেন BCCI-এর কর্তা এবার মহানায়কের তালিমে প্রেমে পড়বেন অনিন্দ্য-রোশনি! প্রকাশ্যে অতি উত্তমের ঝলক প্রাথমিকে নিয়োগ নিয়ে বিরাট নির্দেশ দিল হাইকোর্ট, সার্টিফিকেট যাচাই হবে এবার জুয়ার টাকা পাচার করা হত, পেটিএম ব্যাঙ্কের উপর ৫.৪৯ কোটি টাকা জরিমানা চাপাল সরকার ভালোবেসে শৌনককে বিয়ে ২০১৮-য়! করোনাকালে বিচ্ছেদ, অনুপমকে নিয়ে কী বলল প্রশ্মিতা? মানুষের খাটনির টাকা লুঠ হতে দেব না…ওদের ছাড়বে না মোদী, হুঁশিয়ারি প্রধানমন্ত্রীর ‘অভিনয়ের সঙ্গে রাজনীতি হয় না, ওটা…’ নাম না করেই দেব-মিমিদের ‘ঠুকলেন’শোলাঙ্কি?

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.