বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > যুদ্ধ লাগলেও ভোজ্য তেল নিয়ে কোনও টেনশন নেই!কেন মন্ত্রীকে একথা বললেন শিল্পপতিরা?
যুদ্ধ লেগেছে, ভোজ্য তেল নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে ভারতেও প্রতীকী ছবি : ইনস্টাগ্রাম  (Instagram )

যুদ্ধ লাগলেও ভোজ্য তেল নিয়ে কোনও টেনশন নেই!কেন মন্ত্রীকে একথা বললেন শিল্পপতিরা?

  • প্রতি মাসে দেশে ১৮ লাখ টন ভোজ্য তেল লাগে। এর মধ্যে ১.৫-২.০ লাখ টন লাগে সানফ্লাওয়ার অয়েল।

রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ পরিস্থিতি। আর ভোজ্য তেলের কি হবে তা নিয়ে রাতের ঘুম উড়েছে অনেকেরই। মারাত্মক টেনশন। এবার হয়তো তেলের দাম হু হু করে বেড়ে যাবে। তবে এবার এনিয়ে আশার কথা শোনাল ভোজ্য তেলের সঙ্গে যুক্ত শিল্পোদ্যোগীরা। সরকারকে তারা নিশ্চিত করেছে, আগামী দুমাস সানফ্লাওয়ার তেলের যোগানে কোনও ঘাটতি হবে না। তবে ইউক্রেন থেকে প্রচুর সানফ্লাওয়ার অয়েল ভারতে আমদানি করা হত।কিন্তু যুদ্ধ পরিস্থিতিতে সেই আমদানির কী হবে?

এদিকে খাদ্য ও প্রক্রিয়াকরণ দফতরের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের সঙ্গে শিল্পোদ্য়োগীদের গত শুক্রবার একটি বৈঠক হয়। সেখানে ভোজ্য তেলের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সূত্রের খবর, ওই মিটিংয়ে শিল্পোদ্যোগীরা জানিয়েছেন সানফ্লাওয়ার তেলের কোনও ঘাটতি নেই। যুদ্ধের আগেই ১.৫ লাখ টন সানফ্লাওয়ার তেল ইউক্রেন থেকে ছাড়া হয়েছে। তা হয়তো শীঘ্রই এসে যাবে। পাশাপাশি তাঁরা মন্ত্রীকে জানিয়েছেন, সানফ্লাওয়ার অয়েলের বিকল্প হিসাবে সরষের তেল ও সোয়াবিন তেল দেশে রয়েছে। 

রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ পরিস্থিতি। আর ভোজ্য তেলের কি হবে তা নিয়ে রাতের ঘুম উড়েছে অনেকেরই। মারাত্মক টেনশন। এবার হয়তো তেলের দাম হু হু করে বেড়ে যাবে। তবে এবার এনিয়ে আশার কথা শোনাল ভোজ্য তেলের সঙ্গে যুক্ত শিল্পোদ্যোগীরা। সরকারকে তারা নিশ্চিত করেছে, আগামী দুমাস সানফ্লাওয়ার তেলের যোগানে কোনও ঘাটতি হবে না। তবে ইউক্রেন থেকে প্রচুর সানফ্লাওয়ার অয়েল ভারতে আমদানি করা হত।কিন্তু যুদ্ধ পরিস্থিতিতে সেই আমদানির কী হবে?

এদিকে খাদ্য ও প্রক্রিয়াকরণ দফতরের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের সঙ্গে শিল্পোদ্য়োগীদের গত শুক্রবার একটি বৈঠক হয়। সেখানে ভোজ্য তেলের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সূত্রের খবর, ওই মিটিংয়ে শিল্পোদ্যোগীরা জানিয়েছেন সানফ্লাওয়ার তেলের কোনও ঘাটতি নেই। যুদ্ধের আগেই ১.৫ লাখ টন সানফ্লাওয়ার তেল ইউক্রেন থেকে ছাড়া হয়েছে। তা হয়তো শীঘ্রই এসে যাবে। পাশাপাশি তাঁরা মন্ত্রীকে জানিয়েছেন, সানফ্লাওয়ার অয়েলের বিকল্প হিসাবে সরষের তেল ও সোয়াবিন তেল দেশে রয়েছে। 

|#+|

এদিকে ভোজ্য তেলের দাম গত দুদিনে কিছুটা কমেছে। এদিকে তৈলবীজ ক্ষেত থেকে ওঠার পরে দেশের ভোজ্য তেলের যোগান আরও বাড়বে বলে জানিয়েছেন শিল্পপতিরা। এদিকে প্রতি মাসে দেশে ১৮ লাখ টন ভোজ্য তেল লাগে। এর মধ্যে ১.৫-২.০ লাখ টন লাগে সানফ্লাওয়ার অয়েল। সেক্ষেত্রে চাহিদা পূরণের জন্য মাত্র ১ লাখ টন সানফ্লাওয়ার তেল লাগবে দেশে।

 

বন্ধ করুন