বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কৃষকদের মিছিল থেকে ‘ভাঙচুর’ রাম মন্দিরের ট্যাবলো, হুঁশিয়ারি যোগী সরকারের
প্রজাতন্ত্র দিবসে রাজপথে উত্তরপ্রদেশের ট্যাবলো। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
প্রজাতন্ত্র দিবসে রাজপথে উত্তরপ্রদেশের ট্যাবলো। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

কৃষকদের মিছিল থেকে ‘ভাঙচুর’ রাম মন্দিরের ট্যাবলো, হুঁশিয়ারি যোগী সরকারের

  • অযোধ্যার এক সন্ত বলেন, যাঁরা 'ভাঙচুর' করেছেন, তাঁরা কোনও অংশে ‘জঙ্গিদের’ তুলনায় কম নয়।

প্রজাতন্ত্র দিবসে কৃষকদের বিক্ষোভে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রাম মন্দিরের ট্যাবলো। এমনই অভিযোগ তুললেন উত্তরপ্রদেশ সরকারের এক মুখপাত্র। সঙ্গে ভবিষ্যতে এরকম ঘটনা ঘটলে কড়া ব্যবস্থারও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। 

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের মিডিয়া উপদেষ্টা বলেন, ‘আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখার আর্জি উপেক্ষা করে গত মঙ্গলবার লালকেল্লায় ঢুকে পড়েছিলেন ভারতীয় কিষান ইউনিয়নের (বিকেইউ) লোকজন। সোশ্যাল মিডিয়ায় বিকেইউ রাকেশ তিকাইতকেও হিংসায় প্ররোচনা দিতে দেখা গিয়েছে। তিকাইতের ভূমিকা একেবারেই বরদাস্ত করা যায় না। তাঁর নির্দেশে বিকেইউ সমর্থকরা (রাম মন্দিরের ট্যাবলোর) গম্বুজ এবং অন্যান্য অংশের ক্ষতি করেছেন।’

প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজের পর লালকেল্লার কাছে সব ট্যাবলো রাখা হয়েছিল। তারইমধ্যে সেখানে চলে এসেছিলেন কৃষকদের ট্র্যাক্টর মিছিলে যোগদানকারী বিক্ষোভকারীদের একাংশ। তখন রাম মন্দিরের ট্যাবলোয় ভাঙচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে যোগীর প্রশাসন। ‘ভাঙচুরের’ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অযোধ্যার সন্তরা। একটি বিবৃতিতে আখাড়া পরিষদের সভাপতি মহন্ত নরেন্দ্র গিরি জানান, যাঁরা কোটি কোটি ভক্তদের ভাবাবেগের সঙ্গে খেলেন, তাঁরা মোটেও কৃষক নন। তাঁরা কোনও অংশে ‘জঙ্গিদের’ তুলনায় কম নয়। আইনের উপযুক্ত ধারায় তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

যোগী সরকারের মুখপাত্র জানিয়েছেন, যদি উত্তরপ্রদেশে এরকম ঘটনা ঘটে, তাহলে কড়া হাতে মোকাবিলা করা হবে। তিনি বলেন, ‘এরকম সমাজবিরোধী এবং দেশবিরোধী লোকজনের এরকম অপ্রিয় ঘটনা ঘটে, তাহলে তা কড়া হাতে মোকাবিলা করার পরিকল্পনা তৈরি আছে আমাদের।’ সঙ্গে তিনি যোগ করেন, ‘কেউ রাজ্যের শান্তি বিঘ্নিত করতে পারবেন না।’

বন্ধ করুন