বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সংকটজনক লালুপ্রসাদের কিডনি প্রায় জবাব দিতে বসেছে, দাবি চিকিৎসকের
যে কোনও সময় লালু প্রসাদ যাদবের শারীরিক পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে, বলছেন তাঁর চিকিৎসক।
যে কোনও সময় লালু প্রসাদ যাদবের শারীরিক পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে, বলছেন তাঁর চিকিৎসক।

সংকটজনক লালুপ্রসাদের কিডনি প্রায় জবাব দিতে বসেছে, দাবি চিকিৎসকের

  • চিকিৎসক জানিয়েছেন, তাঁর কিডনির মাত্র ২৫% কাজ করছে এবং পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হচ্ছে। 

সংকটজনক অবস্থায় জেলবন্দি আরজেডি প্রধান তথা বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লালুপ্রসাদ যাদব। চিকিৎসক জানিয়েছেন, তাঁর কিডনির মাত্র ২৫% কাজ করছে এবং আরও অবনতির দিকে যাচ্ছে।

শনিবার রাজেন্দ্র ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেস (আরআইএমএস) হাসপাতালে ভরতি বর্ষীয়ান নেতার শারীরিক পরিস্থিতি সম্পর্কে হাসপাতালের চিকিৎসকদের জানিয়েছেন লালুপ্রসাদের চিকিৎসক উমেশ প্রসাদ। 

সংবাদসংস্থা এএনআই-কে তিনি জানিয়েছেন, ‘আগেও জানিয়েছি যে লালুপ্রসাদ যাদবের কিডনির মাত্র ২৫ শতাংশ সক্রিয় রয়েছে এবং যে কোনও সময় পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে। বলা মুশকিল কখন সংকট ঘনাবে।’

প্রসাদ আরও জানিয়েছেন, ‘যে হারে ওঁর অসুখের মাত্রা বৃদ্ধি হচ্ছে এবং গত ২০ বছর ডায়াবিটিসে ভোগার ফলে তাঁর কিডনির অবস্থা দ্রুত আরও খারাপ। এর জেরে রোগীর শারীরিক পরিস্থিতিরও দ্রুত অবনতি ঘটছে। এই সমস্ত তথ্য আরআইএমএস কর্তৃপক্ষকে লিখিত বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছি এবং যে কোনও মুহূর্তে জরুরি অবস্থা দেখা দিতে পারে বলেও সতর্ক করেছি।’

চিকিৎসক জানিয়েছেন, শারীরিক পরিস্থিতির প্রয়োজনে লালুপ্রসাদকে আর কোনও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার প্রয়োজন নেই কারণ ডায়াবিটিসের দরুণ তাঁর একাধিক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের হাল খুবই শোচনীয়। তাঁর চিকিৎসা সম্পর্কে হাসপাতালের নেফ্রোলজিস্টের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন বলেও জানিয়েছেন প্রসাদ।

অন্য দিকে, শুক্রবার পশুখাদ্য কেলেঙ্কারিতে দোষী সাব্যস্ত লালুপ্রসাদ যাদবের জামিনের আর্জির শুনানি ২২ জানুয়ারি, ২০২১ তারিখ পর্যন্ত পিছিয়ে দিয়েছে ঝাড়খণ্ড হাই কোর্ট। 

২০১৮ সালের ৩০ অগস্ট ঝাড়খণ্ড আদালতের নির্দেশে বিরসা মুন্ডা কেন্দ্রীয় কারাগারে আত্মসমর্পণ করার পরে লালুপ্রসাদ যাদবকে শারীরিক সমস্যার কারণে আরআইএমএস হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেই থেকে তিনি সেখানেই ভরতি রয়েছেন।

গত অক্টোবর মাসে তিনি পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির চাইবাসা ট্রেজারি মামলায় জামিন পান লালুপ্রসাদ। কিন্তু দুমকা ট্রেজারি মামলায় তিনি এখনও জামিন পাননি।

 

বন্ধ করুন