অসমে গ্রেফতার বাঙালি শিক্ষক (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
অসমে গ্রেফতার বাঙালি শিক্ষক (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

মোদীর বিরুদ্ধে 'আপত্তিকর' মন্তব্য, অসমে গ্রেফতার বাঙালি শিক্ষক

  • অসমের গুরুচরণ কলেজের পদার্থবিদ্যার ওই অতিথি শিক্ষক সৌরদীপ সেনগুপ্তের বাবা-মা'কে হুমকিও দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে 'আপত্তিকর' মন্তব্য করায় এক কলেজ শিক্ষককে গ্রেফতার করল পুলিশ। অসমের গুরুচরণ কলেজের পদার্থবিদ্যার ওই অতিথি শিক্ষক সৌরদীপ সেনগুপ্তের বাবা-মা'কে হুমকিও দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ।

গত বৃহস্পতিবার দিল্লির হিংসার ঘটনা নিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন প্রেসিডেন্সি কলেজের প্রাক্তনী সৌরদ্বীপ। অভিযোগ, সেই পোস্টে একটি ধর্ম ও মোদীর বিরুদ্ধে আপত্তিকর মন্তব্য করা হয়েছে। এনিয়ে সৌরদ্বীপের বিরুদ্ধে শুক্রবার গুরুচরণ কলেজে বিক্ষোভ দেখান কয়েকজন পডু়য়া। কলেজের অধ্যক্ষকে চিঠি লেখেন তাঁরা। সৌরদ্বীপকে অবিলম্বে বরখাস্তের দাবি তোলেন। পরে সৌরদ্বীপের বিরুদ্ধে শিলচরের সদর থানায় এফআইআরও দায়ের করেন পড়ুয়ারা।

শুক্রবার দুপুরেই অবশ্য নিজের পোস্ট ডিলিট করার পাশাপাশি ক্ষমাও চেয়ে নেন সৌরদ্বীপ। নতুন একটি পোস্টে লেখেন, 'পোস্টের মাধ্যমে কোনও ধর্মীয় ভাবাবেগকে আঘাত করে থাকলে আমি ক্ষমা চাইছি। একটি স্পর্শকাতর সাম্প্রদায়িক বিষয় নিয়ে আমি দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো মন্তব্য করেছি। এটা আমার বিচারের ভুল। কোনও ধর্মকে অসম্মান করা আমার উদ্দেশ্য ছিল না।'

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে সৌরদ্বীপের পরিজনেরা জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রায় জনা ৪০ পড়ুয়া তাঁদের বাড়ি ঘিরে ফেলেন। সৌরদ্বীপকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানান। এমনকী সৌরদ্বীপের ঘরের দরজা খুলতেও বাধ্য করে পড়ুয়ারা। সঙ্গে জয় শ্রীরাম স্লোগান তোলে। সেই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে নিরাপত্তা চেয়ে সদর থানায় গেলে উলটে সৌরদ্বীপকে গ্রেফতার করা হয়। তাঁর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৯৫ (এ), ১৫৩ (এ), ৫০৭ ধারা ও তথ্যপ্রযুক্তির আইনের ৬৬ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

বন্ধ করুন