বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বাংলাদেশের বন্দর ব্যবহার করে পণ্য যাচ্ছে ভারতের উত্তর-পূর্বে, শুরু হল মহড়া
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

বাংলাদেশের বন্দর ব্যবহার করে পণ্য যাচ্ছে ভারতের উত্তর-পূর্বে, শুরু হল মহড়া

  • ভারত ২০২০ সালে জুলাই মাসে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে ত্রিপুরায় পণ্য পাঠিয়েঠিল। তবে কোভিড অতিমারির এই উদ্যোগ স্থগিত হয়ে গিয়েছিল। ভারতীয় দূতাবাস জানিয়েছে, এই রুটের মাধ্যমে পরিবহণ খরচ, ও সময় দুই বাঁচবে। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের ট্রাকগুলিও কাজ পাবে।

রেজাউল এইচ লস্কর

বাংলাদেশের দুটি বন্দরকে ব্যবহার করে এবার ভারতের উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলিতে সামগ্রী পাঠানোর ক্ষেত্রে মহড়া শুরু করে দিল ভারত। প্রথম দিকে ঠিক হয়েছিল জুলাইতেই এই মহড়া শুরু হবে। তবে কিছু প্রস্তুতির জন্য দেরি হলে গেল। এদিকে সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ভারতে আসতে পারেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার আগে এই উদ্যোগ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

২০১৮ সালে এনিয়ে মউ স্বাক্ষরিত হয়েছিল। চট্টগ্রাম ও মঙ্গলা বন্দরের মাধ্যমে ভারতের মালপত্র নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। সেই মতো সোমবার দুটি ভারতীয় জাহাজ মঙ্গলা বন্দরে এসে থামে।

এমভি রিশাদ রায়হান নামে ওই পণ্যবহনকারী ভেসেলটি উত্তরপূর্বের দিকে যাচ্ছে। মঙ্গলা বন্দরের চেয়ারম্যান মহম্মদ মুসা ও খুলনায় থাকা ভারতের সহকারি হাই কমিশনার ইন্দরজিৎ সাগর এই জাহাজের সূচনা করেন।

মঙ্গলা-তাম্বিল- ডাওকি ও মঙ্গলা-বিবিরবাজার-শ্রীমন্তপুর রুট দিয়ে এই মহড়া হবে বলে খবর। পশ্চিমবঙ্গের শ্রীমন্তপুর ও মেঘালয়ের ডাওকি সীমান্ত চেক পয়েন্ট দিয়ে এই সামগ্রী যাবে।

ভারত ২০২০ সালে জুলাই মাসে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে ত্রিপুরায় পণ্য পাঠিয়েঠিল। তবে কোভিড অতিমারির এই উদ্যোগ স্থগিত হয়ে গিয়েছিল। ভারতীয় দূতাবাস জানিয়েছে, এই রুটের মাধ্যমে পরিবহণ খরচ, ও সময় দুই বাঁচবে। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের ট্রাকগুলিও কাজ পাবে।

এদিকে কলকাতা থেকে উত্তরপূর্ব ভারতের রাজ্যগুলির দূরত্ব প্রায় ১২০০ কিমি। তবে জলপথে সেই দূরত্ব কমে অর্ধেক হয়ে যাচ্ছে। 

বন্ধ করুন