বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > Iran do not sing national anthem: হিজাব বিরোধী প্রতিবাদে সামিল ইরানের ফুটবলাররাও, বিশ্বকাপে গাইলেন না জাতীয় সংগীত

Iran do not sing national anthem: হিজাব বিরোধী প্রতিবাদে সামিল ইরানের ফুটবলাররাও, বিশ্বকাপে গাইলেন না জাতীয় সংগীত

বিশ্বকাপের ম্যাচের আগে গান গাইলেন না ইরানের ফুটবলাররা এবং গ্যালারিতে ইরানি মহিলারা। (ছবি সৌজন্যে এএফপি এবং রয়টার্স)

Iran do not sing national anthem: ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচের আগে জাতীয় সংগীত গাইলেন না ইরানের ফুটবলাররা। হিজাব-বিরোধী আন্দোলনের সমর্থন করেন।

ইরানের ফুটবলারদের প্রতিবাদের মঞ্চ হয়ে উঠল বিশ্বকাপ। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচের আগে জাতীয় সংগীত গাইলেন না ইরানের ফুটবলাররা। নিজেদের দেশের সরকার-বিরোধী (হিজাব-বিরোধী আন্দোলনের সমর্থনে) যে প্রতিবাদ চলছে, তার সমর্থনেই সেই সিদ্ধান্ত নেন আলিরেজা বেইরানবন্দ, সাদগে মহারামিরা।

সোমবার মধ্য দোহার পাঁচ কিলোমিটার পশ্চিমে খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে এবারের বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে নামার আগে ইরানের অধিনায়ক আলিরেজা জাহানবখস জানিয়েছিলেন, দেশের সরকার-বিরোধী আন্দোলনের সমর্থনে জাতীয় সংগীত গাইবেন গাইবেন না, সে বিষয়ে দলগতভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। দল যা সিদ্ধান্ত নেবে, সেটাই পথেই হাঁটা হবে।

আরও পড়ুন: England vs Iran FIFA World Cup 2022 LIVE Updates: বেলিংহ্যাম, সাকার পরে স্টার্লিং, ৩-০ এগিয়ে ইংল্যান্ড

সেইমতো আজ কিক-অফের আগে চিরাচরিত মতো দোহার খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে যখন ইরানের জাতীয় সংগীত বাজানো হয়, তখন ইরানের ফুটবলারদের চোয়ালচাপা মুখ ধরা পড়ে। জাতীয় সংগীতে গলা মেলাননি তাঁরা। কার্লোস কুইরোজের ছেলেরা চুপ করে একে অপরের কাঁধ ধরে দাঁড়িয়েছিলেন। যে দৃশ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। সেইসঙ্গে প্রতিবাদের বার্তাও স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

আরও পড়ুন: England vs Iran Live Streaming: 'কামিং হোম' হবে? ইরানের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে নামছে ইংল্যান্ড, কোথায় ও কখন ম্যাচ?

কী কারণে প্রতিবাদে সামিল হন ইরানের ফুটবলাররা?

গত ১৬ সেপ্টেম্বর মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর থেকেই উত্তাল হয়ে উঠেছে ইরান। ইসলামিক দেশের পোশাকবিধি ভঙ্গের অভিযোগে তেহরান থেকে গ্রেফতারির তিনদিন পরেই মৃত্যু হয় ২২ বছরের কুর্দিশ মেয়ে আমিনির। যে দেশে মহিলাদের বাধ্যতামূলকভাবে হিজাব পরতে হয়। তারপরই হিজাব-বিরোধী প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে ওঠে ইরান। সেই আন্দোলনের সমর্থনে ইরানের অ্যাথলিটরা জয় উদযাপন করেননি। অনেকে জাতীয় সংগীতও গাননি।

বন্ধ করুন