বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > 'মেসি তৃণমূলের জার্সি পরেই খেলতে নেমেছিলেন', অবাক দাবি মদন মিত্রের
লিওনেল মেসি এবং মদন মিত্র।
লিওনেল মেসি এবং মদন মিত্র।

'মেসি তৃণমূলের জার্সি পরেই খেলতে নেমেছিলেন', অবাক দাবি মদন মিত্রের

  • ২০১১ সালে ভেনিজুয়েলার বিরুদ্ধে প্রদর্শনী ম্যাচ খেলতে কলকাতায় এসেছিলেন লিও মেসি এবং তাঁর দল আর্জেন্তিনা। ২ সেপ্টেম্বর ম্যাচটি যুবভারতীতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এই ম্যাচে মেসিরা ১-০ গোলে জয় পান। মেসি গোল না করলেও আকর্ষণের কেন্দ্রে ছিলেন তিনিই।

তৃণমূল জন্মের আগে থেকেই আর্জেন্তিনার জার্সির রং নীল-সাদা। আর সেই জার্সির রঙের সঙ্গে নিজেদের দলের রংকে মেলাতে গিয়ে আর্জেন্তিনাকেই তৃণমূল স্তরে নামিয়ে আনলেন মদন মিত্র। তৃণমূলের জনপ্রিয় নেতার দাবি, ‘মেসি কিন্তু ব্লু অ্যান্ড হোয়াইটকে জনপ্রিয় করে দিলেন। আমার তো মনে হচ্ছিল, তৃণমূলের জার্সি পরে মাঠে খেলতে নেমেছেন মেসি।’

মদন মিত্রের এমন অদ্ভূত দাবিতে রীতিমতো হতবাক ফুটবল প্রেমীরা। যার ফলে তাঁকে নিয়ে কটাক্ষ করার পাশাপাশি কেউ কেউ ক্ষোভও উগড়ে দিচ্ছেন। তবে মদন মিত্রের এ সবে একেবারেই মাথাব্যথা নেই। তিনি মেসিতেই মজে। ২০১১ সালের স্মৃতিতে এখনও ডুবে রয়েছেন মদন মিত্র। বলছিলেন, ‘আর্জেন্তিনা জয়ের পর আমি নস্ট্যালজিক হয়ে পড়েছি। ভাবছিলাম, এই মানুষটার হাতেই আমি পুরস্কার তুলে দিয়েছিলাম।’

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে ভেনিজুয়েলার বিরুদ্ধে প্রদর্শনী ম্যাচ খেলতে কলকাতায় এসেছিলেন লিও মেসি এবং তাঁর দল আর্জেন্তিনা। ২ সেপ্টেম্বর ম্যাচটি যুবভারতীতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এই ম্যাচে মেসিরা ১-০ গোলে জয় পান। মেসি গোল না করলেও আকর্ষণের কেন্দ্রে ছিলেন তিনিই। পুরো যুবভারতীর নজর ছিল তাঁর উপরে। মেসির জাদুতে সে দিন একেবারে আচ্ছন্ন হয়েছিল যুবভারতী। 

মদন মিত্রের কাছে পেলে বা মারাদোনা নন, মেসিই বিশ্বের সেরা ফুটবলার। তিনি বলছিলেন, ‘পৃথিবীর সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ খেলোয়াড়, আমার চোখে মেসি। যাঁকে আমি সামনে দেখে দেখেছি। ওঁকে যেটুকু দেখেছি, তাতে আমার মনে হয়েছে, মেসি কিছুটা উদাসীন প্রকৃতির। খুব বেশি বিতর্কে ও থাকতে চান না। তিন থেকে চার ঘণ্টা যখন অনুশীলন করতেন, তখন ভুলেই যেতেন, আশেপাশে আর কেউ রয়েছেন। মেসি কিন্তু কলকাতায় নীল-সাদা ব্রিগেডকে জনপ্রিয় করে দিয়ে গেলেন।’

বন্ধ করুন